তারেকের নাম না বলায় মৃত্যুদণ্ড: বাবর

২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলটির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারসপারসন তারেক রহমানের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করায় মৃত্যুদণ্ডের সাজা পেয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর।

সাজা ঘোষণার পর তিনি আদালতকে বলেন, আমি সম্পূর্ণ নির্দোষ। আমাকে সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে সাজা দেয়া হল। আমি খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নাম বলিনি। তাই আমাকে এই সাজা দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি প্রতিদিন তাহাজ্জুত নামাজ পড়ি এবং আল্লাহর কাছে এই ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করি। আমি আল্লাহর কাছে এই ঘটনার বিচার চাই।

২০০৪ সালের ওই গ্রেনেড হামলার সময় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে ছিলেন লুৎফুজ্জামান বাবর। বুধবার রায় ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন , ২১ আগস্টের ঘটনাটি ইতিহাসের জঘন্যতম একটি ঘটনা। এই ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের সর্বোচ্চ সাজা আমিও চেয়েছি।

প্রসঙ্গত, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, তারেক রহমানসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবন এবং বাকি ১১ আসামিকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।ঢাকার এক নম্বর দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিন বুধবার বেলা ১২টায় হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে করা আলোচিত দুই মামলার রায় ঘোষণা করেন।

মানবকণ্ঠ/এআর

Leave a Reply

Your email address will not be published.