তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় বিএনপি: মওদুদ

মওদুদ আহমদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় বিএনপি। কারণ সহায়কের প্রধান থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি থাকলে সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন হবে না। সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থেই তত্ত্বাবধায়ক প্রয়োজন।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন শীর্ষক এক আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন।

মওদুদ বলেন, ভোটের ৯০ দিন আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। সেনাবাহিনী নামবে এবং তাদের পূর্ণ ক্ষমতা দিতে হবে। নির্বাচন পরিচালনায় আগের মতো তত্ত্বাবধায়ক সরকার দিতে হবে।

মওদুদ আরো বলেন, সহায়ক সরকার থাকলে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ওপর ক্ষমতা প্রয়োগ হবে। এটি জনগণের সঙ্গে প্রতারণা। শুধু তাই নয়, ইসির মাঠ পর্যায়ে লোক নেই। তারা কাজে লাগবে প্রশাসন। আর প্রশাসন মানেই প্রধানমন্ত্রীর আওতা। এমন হলে সুষ্ঠু ভোট কোনোভাবেই সম্ভব না।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সরকার ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ব্যর্থ। রোহিঙ্গাদের সংখ্যা বাড়ছে, জটিলতাও বেড়ে চলেছে। আগে ভারত, চীন ও রাশিয়ার সমর্থন আদায় করতে হবে। মূলত আমাদের কূটনীতিক ব্যর্থতা আছে। প্রতিদিনই নতুন করে ক্যাম্পে শিশু জন্ম নিচ্ছে। মানুষও ঢুকছে রোজ। এভাবে সংখ্যা বৃদ্ধি আর সময় যেতে থাকলে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে নেমে যাবে রোহিঙ্গারা।

বিএনপি আন্দোলন করেনি উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিগত দুই বছর বিএনপি কোনো আন্দোলন করেনি। সামনে নির্বাচন, তত্ত্বাবধায়কের দাবি আদায়ে প্রয়োজনে আবার আন্দোলনে মাঠে নামতে হবে। জনগণও এর অপেক্ষায় আছে।

মানবকণ্ঠ/এসএস