ঢাকায় নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে আওয়ামী লীগের মহাপরিকল্পনা!

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজধানী ঢাকাকে নিয়ে মহাপরিকল্পনা করছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী অঙ্গসংগঠনগুলো। নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়ে কাজ শুরু করেছে মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগ মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতারা। আগামী ১১ ডিসেম্বর থেকেই নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণাসহ বিভিন্ন পরিকল্পনা ভিত্তিক কাজ করবে রাজনৈতিক এ সংগঠনগুলো।

এছাড়া আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট শরিকদের থেকেও নেয়া হবে নির্বাচনী পরিকল্পনা। দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানকের নেতৃত্বে নির্বাচনী পরিচালনায় থাকবে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি। দলীয় সূত্রে জানা যায়, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ নৌকা প্রতীকের চ‚ড়ান্ত মনোনয়নদের চিঠি দিয়েছে। ঢাকার ২০টি আসনে নৌকা প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত করতে মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি করেছে।

প্রতিদিনই চলছে কর্ম পরিকল্পনা নিয়ে আলাপচারিতা। কে থাকবেন কোন কেন্দ্রে, কে হবেন কেন্দ্রের সমন্বয়ক। বর্তমানে ঢাকার হাতেগোনা এক-দু’জন ছাড়া অধিকাংশ এমপিই আওয়ামী লীগের নৌকার টিকিট পেয়েছেন। তারা নিজেরাও সক্রিয় রয়েছেন এই রাজধানীকে ঘিরে। আবারো ক্ষমতায় এসে ঢাকাকে গড়তে চায় আধুনিকভাবে। সেই প্রত্যহ নিয়ে নিজেরাই তার সমর্থকদের ভোট আদায়ের জন্য ‘ওয়ার্ড টু ওয়ার্ড’ কমিটি গঠন করেছেন। বর্তমান সরকারের সব উন্নয়নের চিত্র ভোটারদের মাঝে তুলে ধরবেন নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা কমিটি।

এছাড়া আওয়ামী লীগ নির্বাচনকে ঘিরে গঠন করেছে উপপ্রচার কমিটি। এই কমিটির মাধ্যমে সারাদেশে নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ন্ত্রণ করা হবে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রচারণায় থাকবে ডজনখানেক অভিনয় শিল্পী। তারা ঢাকাতেও নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেবে। রাজধানীর হাতিরঝিলসহ বিভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী প্রচারণার কাজ করবে সেলিব্রেটিরা। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সক্রিয় রয়েছে। প্রতিনিয়তই নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার নিয়ে সভা, সমাবেশ ও ছোট পরিসরে আলোচনা করছে। রাজধানীতে নৌকাকে বিজয়ী করতে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় নির্দেশনায় কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান মানবকণ্ঠকে বলেন, আমার এলাকার সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা নৌকাকে বিজয়ী করতে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকার মধ্যে যেসব নেতাকে নৌকার টিকিট দিয়েছেন, তারা সবাই চমৎকার প্রার্থী। নৌকাকে বিজয়ী করে নিয়ে আসতে পারবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমরা কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি গঠন করেছি। একজন প্রভাবশালী নেতাকে দিয়েই এই কমিটি পরিচালনা করা হবে। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেউ যদি কোনো প্রকার বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করে তাহলে আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করব।

ইতিমধ্যে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ১০০টি টিম গঠন করেছে সংসদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার জন্য। এ ছাড়া কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটিও গঠনের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আগামীকাল সোমবার ঢাকা-৮ আসনে মহাজোট মনোনীত প্রার্থী রাশেদ খান মেননের পক্ষে কাজ করতে কাকরাইলে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বর্ধিত সভার আহ্বান করা হয়েছে। ঢাকার অধীনে প্রতিটি আসনে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করাই যুবলীগের প্রধান টার্গেট বলে জানিয়েছেন সংগঠনের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরীর নেতৃত্বে দক্ষিণ যুবলীগ আগে থেকেই নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করি। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে ১০০টি টিম গঠন করা হয়েছে। ওই টিমে শুধু দলের নেতাকর্মীই নয়, সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ রয়েছেন। যারা সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন। এ ছাড়া তাদের নিজস্ব ইমেজ রয়েছে। তারা নৌকার পক্ষে কাজ শুরু করেছেন। এ ছাড়া আমাদের কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি গঠনের কাজ শেষ পর্যায়ে।

এছাড়া আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক লীগ রাজধানী ঢাকার ২০টি আসনকে ঘিরে হাতে নিয়েছে নির্বাচনী পরিকল্পনা। রাজধানীর প্রতিটি ঘরে গিয়ে ভোট চাওয়া থেকে শুরু করে তাদের নির্বাচনী ক্যাম্পিংয়েই রয়েছে কয়েকটি ধাপ। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, ‘৫ সদস্য বিশিষ্ট ভোট কেন্দ্র কমিটি’ গঠন। এই কমিটির সদস্যদের নাম, মোবাইল নম্বর ও ছবি দিয়ে করা হবে পরিচয়পত্র। ভোট কেন্দ্র কমিটিকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য করা হবে আসন ভিত্তিক কমিটি। সেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্র থেকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দেবে আসন ভিত্তিক কমিটিকে।

বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওসার মানবকণ্ঠকে বলেন, আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সেচ্ছাসেবক লীগ এখন থেকেই মাঠে রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঢাকাসহ সারাদেশের নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে কাজ করছে সেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা। ঘর টু ঘর-ওয়ার্ড টু ওয়ার্ডে গিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে সক্রিয় রয়েছে আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগ। এই নির্বাচনকে কেন্দ্র ঘিরে কয়েকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এসব কমিটি কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারা নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজধানী ঢাকাকে নিয়ে মহানগর (উত্তর) ছাত্রলীগ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। নতুন ভোটারদের উৎসাহ দিতে এখন থেকে মাঠে কাজ করছে মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ। এবারে নির্বাচনে ৯টি আসনই ছাত্রলীগ নির্বাচনী প্রচারণার দখলে রাখবে বলে জানিয়েছে মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ। বিএনপি কোনো নাশকতার চেষ্টা করলে প্রতিহত করার প্রস্তুতি রয়েছে এই সংগঠনটির।

এ প্রসঙ্গে মহানগর (উত্তর) ছাত্রলীগের সভাপতি ইব্রাহিম মানবকণ্ঠকে বলেন, আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দিয়েছে ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ তাদের পক্ষে কাজ করবে। ২০১৪ সালে বিএনপি-জামায়াত যে ধ্বংসাত্মক কর্মকাণ্ড চালিয়েছে এবার সেই বিষয়ে ছাত্রলীগ সোচ্চার থাকবে। বিএনপি মনোনয়ন বিক্রির শুরু থেকেই বিভিন্ন ফন্দিফিকির শুরু করেছে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপির ফন্দিফিকির প্রতিহত করা হবে।

তিনি আরো বলেন, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন থানায় নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় সভা, আলোচনা সভা করছে। ছাত্রলীগ কেন্দ্র দখল নয়, জনগণ সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারে এটা নিশ্চিয়তার জন্য কেন্দ্র দায়িত্ব পালন করেব।

এদিকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ তরুণ ভোটার ও প্রথমবার যারা ভোটার হয়েছেন তাদের ভোট টানতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে গত ১০ বছরে সরকারের উন্নয়নগুলো তাদের সামনে তুলে ধরা হচ্ছে। নৌকায় মানুষ ভোট দিলে যে উন্নয়ন হয়, সেটাই তরুণ ভোটারদের জানানো হবে।

এ প্রসঙ্গে দক্ষিণের সভাপতি মেহেদী হাসান মানবকণ্ঠকে বলেন, আমরা কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি গঠন, নৌকার পক্ষে প্রচার-প্রচারণা এবং তরুণ ভোটারদের টানতে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হলেই আমরা পুরোদমে কাজ শুরু করব। সোমবার আমরা ঢাকা-৮ আসনের মহাজোট প্রার্থীর হাতে নৌকা তুলে দিয়ে নৌকাকে বিজয়ী করতে কাজ শুরু করব।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ