ড. শরীফ এনামুল কবিরের ‘অনন্য শেখ হাসিনা’

অমর একুশে বই মেলায় আসছে অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবিরের বই ‘অনন্য শেখ হাসিনা’। বইটি তিনি উৎসর্গ করেছেন একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারী সকল শহীদদেরকে। বইটি প্রকাশ করেছে জিনিয়াস পাবলিকেশন্স। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার থেকে বই মেলায় জিনিয়াস পাবলিকেশন্সের ২৫১, ২৫২ ও ২৫৩ নং স্টলে বইটি পাওয়া যাবে। বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ৪০০ টাকা।

এক সময়ের ভঙ্গুর অর্থনীতির বাংলাদেশ এখন নিজের শক্ত পায়ে দাঁড়িয়ে। দরিদ্র কিংবা স্বল্পোন্নত পরিচয়ের ঘেরাটোপ থেকে বের হয়ে নতুন পরিচিতি ‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’। এটি অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিভিন্ন আঙ্গিকে এগিয়ে যাওয়ারই এক অনন্য উদাহরণ। বিগত কয়েক বছর ধরেই অব্যাহতভাবে বাড়ছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও মানব উন্নয়ন। এসবই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টি ও প্রজ্ঞাময় নেতৃত্বের ফলে। অগ্রযাত্রার এই গল্পে নানা বিষয়ের দেখা মিলবে অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবিরের এই বইয়ে অন্তর্ভূক্ত বিভিন্ন লেখায়।

ড. শরীফ এনামুল কবির জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক। দেশে অর্গানোমেটালিক ও ক্লাস্টার রসায়নে যে ক‘জন গবেষক অনন্য সাফল্য পেয়েছেন, সেই তালিকায় তিনি অন্যতম ও শীর্ষে। নিজ বিভাগে ২৫ জন পিএইচডি গবেষকের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে কাজ করেছেন; পিএইচডিসহ এমফিল আর এমএসসি পর্যায়ে তিনি তত্ত্বাবধান করেছেন আড়াইশ’রও বেশি শিক্ষার্থীর গবেষণা কর্ম। এই বিভাগ থেকে উচ্চশিক্ষার পর তিনি ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন থেকে ক্লাসটার রসায়নে ডক্টরেট ডিগ্রি নেন। ভিজিটিং ফেলো হিসেবে তাঁর পদচারণা রয়েছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, সুইডেন, জার্মানিসহ বিভিন্ন দেশের শীর্ষ বিশ্ববিদ্যালয়েও।

বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখায় অবদানের জন্য বাংলাদেশ একাডেমি অব সায়েন্সেস স্বর্ণপদক, ড. এম এ গণি স্বর্ণপদক, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন পদক, দ্য রয়েল সোসাইটি অব কেমেস্ট্রি রিসার্চ ফান্ড অ্যাওয়ার্ড, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি প্রাইজ অব বুকসহ পেয়েছেন অসংখ্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার ও সম্মাননা।

ড. শরীফ এনামুল কবিরের লেখার উপজীব্য শিক্ষা ও গবেষণার মান, সমাজসংস্কার ও দেশের অগ্রগতি। কুসংস্কার, অজ্ঞতা, ধর্মদ্রোহী, স্বাধীনতা বিরোধীদের অপতৎপরতা প্রতিরোধপূর্বক দেশ এগিয়ে যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে- তা গল্পের পরতে পরতে নিখুঁত লেখনীতে তুলে ধরেন এই প্রাজ্ঞ গবেষক। তাঁর পঠিত জ্ঞান, আর বাস্তবজীবনের অভিজ্ঞতার পূর্ণ প্রতিফলন ঘটেছে ‘প্রগতির মহাসড়কে বাংলাদেশ’ ও ‘প্রগতির ধারায় বাংলাদেশের শিক্ষা’ গ্রন্থ দুটিতে, যা প্রকাশিত হয়েছে গেল দুই বছরের বইমেলায়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণার মৌলিক পরিবর্তনে আজীবন প্রত্যয়ী অধ্যাপক কবীর দক্ষ সংগঠকও। বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সদস্য হিসেবে দায়িত্বপালন করেন। উপাচার্য ছিলেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধুর আর্দশ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ এর প্রতিষ্ঠাতাও তিনি। সিনেট এবং সিন্ডিকেট সদস্য এখনো স্বক্রিয় অনেকগুলো বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায়। বাংলাদেশ অ্যাকাডেমি অব সায়েন্স, বাংলাদেশ কেমিক্যাল সোসাইটি, দ্য রয়েল সোসাইটি অব কেমিস্ট্রির ফেলো হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন। সদস্য হিসেবে কাজ করছেন আমেরিকান কেমিক্যাল সোসাইটি, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য অ্যাডভান্সমেন্ট অব সায়েন্স, এসিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশসহ অসংখ্য সংগঠন ও রিসার্চ প্রতিষ্ঠানের।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ