ডাকসু ভোট সুষ্ঠু না হলে সব পদেই বিজয়ী হতো ছাত্রলীগ: শোভন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে ছাত্রলীগ সব পদেই বিজয়ী হতো বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। তিনি বলেন, ‘ভোট যদি সুষ্ঠু না হতো তবে সব পদেই ছাত্রলীগ জয়ী হতো। কিন্তু ভোট সুষ্ঠু হয়েছে বলেই সেটি হয়নি। মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ডাকসু নির্বাচন প্রসঙ্গে শোভন বলেন, সব নির্বাচনেই কিছু অভিযোগপূর্ণ ঘটনা ঘটে। তবে ডাকসু নির্বাচন সর্বোপরি সুষ্ঠু হয়েছে। যদি ঝামেলা হতো তা হলে কিন্তু ছাত্রলীগের সব প্রার্থীই জয়ী হতো। সেটি কিন্তু হয়নি। তার মানে নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। আর এ কারণেই এখনও পরিবেশ শান্ত রয়েছে।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘আপনারা জানেন, কুয়েত মৈত্রী হলে ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল। তা পুনরায় গ্রহণ করা হয়েছে। রোকেয়া হলেও একইভাবে নতুন করে ভোটগ্রহণ করা হয়।’

ডাকসু নির্বাচনের অতীত ইতিহাস স্মরণ করে শোভন বলেন, ‘আগে ডাকসু নির্বাচন এলেই ক্যাম্পাসে রক্ত ঝরত, লাশ পড়ত। এখন সেই পরিবেশ নেই। আমরা চাই- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ শান্ত থাকুক। শিক্ষার্থীরা নির্বিঘ্নে ক্লাস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করুক।’

এদিকে ভোটে কারচুপি-জালিয়াতির অভিযোগ এনে পুনঃতফসিলের দাবিতে চলমান আন্দোলনের মধ্যেই ডাকসু ও হল সংসদের নবনির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিয়ে আগামী ২৩ মার্চ প্রথম কার্যকরী সভা তারিখ ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ২৮ বছর পর গত ১১ মার্চ ডাকসু এবং ১৮টি হল সংসদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তবে ভোটে কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে একাধিক প্যানেল এ নির্বাচন বর্জন করে।

এবারের নির্বাচনে ডাকসুতে ২৫টি পদের ২৩টিতে ছাত্রলীগ বিজয়ী হলেও ভিপিসহ দুটি পদে জয় পায় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের প্যানেল ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। যেখানে ডাকসুর সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে জয়ী হন ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্রার্থী নূরুল হক নুর। সাধারণ সম্পাদক (জিএস) নির্বাচিত হন ছাত্রলীগের গোলাম রাব্বানী।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ