ডাকসুতেও ভোটের বাক্স ভরা হয়েছে রাতেই: রিজভী

ডাকসুতেও ভোটের বাক্স ভরা হয়েছে রাতেই: রিজভী

মধ্যরাতের ভোটের সংস্কৃতি থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও বের হতে পারেনি বলে দাবি করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, ডাকসু নির্বাচনেও গতরাতে ব্যালট বাক্স ভরা হয়েছে। যার প্রমাণ পাওয়া গেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কুয়েত মৈত্রী হলে।

সোমবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

ডাকসু নির্বাচনকে কলঙ্কিত করা হয়েছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, এ নির্বাচনের পরিণতি নিয়ে জনমনে সংশয় গভীর থেকে গভীরতর হয়েছে। ২৮ বছর পরে ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ নির্বাচনেও সাধারণ ছাত্রদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, নাৎসিবাদী গণতন্ত্রের নানারূপ এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিফলিত হয়েছে। ঢাবির ৪৩ হাজার শিক্ষার্থীর জন্য মোট ভোট কেন্দ্র করা হয়েছে ১৮টি হলে। অথচ ছাত্রলীগ ছাড়া সব সংগঠন ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা একাডেমিক ভবনে ভোট কেন্দ্র দাবি করেছিলেন। দাবি করেছিলেন ভোটের সময় বাড়ানো, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সের। কিন্তু এসব দাবি নাকচ করা হয়েছে। এমনকি নির্বাচনের সব ধরনের অনিয়মের প্রমাণ না রাখতে মিডিয়াকে পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে।

রিজভী বলেন, বিরোধী মতের শিক্ষকদের ডাকসু নির্বাচনের কোনো দায়িত্বে রাখা হয়নি। সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা যাতে ভোট দিতে না পারে, সেজন্য পুলিশ অবিশ্বাস্য রকমের তৎপরতা শুরু করেছে। সব হলেই ছাত্রলীগের আতঙ্কজনক মহড়া চলছে।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার বিষয়ে রিজভী বলেন, যে হাসপাতালকে (বিএসএমএমইউ) অন্য হাসপাতাল থেকে ক্লিনিক্যাল যন্ত্রপাতি ধার করে আনতে হয়, সেখানে কিভাবে সুচিকিৎসা সম্ভব। আওয়ামী নেতার চিকিৎসা সেখানে সম্ভব হয়নি। বিদেশ থেকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আনার পরও আওয়ামী নেতাদের বিদেশে পাঠাতে হয় চিকিৎসার জন্য। সেটিও আবার রাষ্ট্রীয় খরচে। অথচ বেগম জিয়ার নিজ দেশের বিশেষায়িত হাসপাতালে নিজ খরচে চিকিৎসা করানোর সুযোগ নেই। তাকে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা রহমান ও প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/এসএস

Leave a Reply

Your email address will not be published.