জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া উচিত: নজরুল ইসলাম

জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া উচিত: নজরুল ইসলাম

১৯৭১ সালের ভূমিকা নিয়ে জামায়াতের ক্ষমা চাওয়ার দাবি যুক্তিসংগত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, যারা গণতন্ত্র হত্যা করেছে, তারাও আজ পর্যন্ত জনগণের কাছে ক্ষমা চায়নি।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ মন্তব্য করেন। জাতীয়তাবাদী তাঁতী দলের ৩৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের নিয়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান নজরুল ইসলাম খান।

১৯৭১ সালের ভূমিকা নিয়ে জামায়াতের ভেতর থেকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি উঠেছে—এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে নজরুল ইসলাম খান বলেন, এই দাবি তো সবার। জামায়াত স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধিতা করেছে। এ জন্য তাদের দুঃখ, লজ্জা ও ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত। এটা যেমন যুক্তিসংগত দাবি, তেমনি আরো যুক্তিসংগত দাবি আছে। স্বাধীনতার বিরোধিতা যারা করেছে, অবশ্যই তাদের শাস্তি ও বিচার চাই।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, তারা মনে করেন, যারা অপরাধ করেছে, তাদের সবার ক্ষমা চাওয়া উচিত। আর তারা যদি কোনো দোষ করেন, তাহলে তাদেরও উচিত জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়া। কিন্তু এ দেশে সেই রীতির প্রচলন নেই।

জামায়াত বিলুপ্ত করে আলাদা দল গঠন করার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম খান বলেন, এটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার।

জামায়াত ২০-দলীয় জোটে নেই—এ বিষয়ে জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম বলেন, তার জানা মতে, ২০-দলীয় জোটে কোনো পরিবর্তন ঘটেনি। জামায়াতের পক্ষ থেকে তাদের কখনো বলা হয়নি যে, তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, জোটের সঙ্গে থাকবে না। তবে জামায়াত একটি আলাদা রাজনৈতিক দল। সেই দলের সিদ্ধান্ত নেয়ার সুযোগ, অধিকার ও ক্ষমতা তাদের আছে। কিন্তু তাদের জানা মতে, এমন কোনো সিদ্ধান্ত জামায়াত নিয়েছে বলে তারা শোনেননি।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সমালোচনা করে নজরুল বলেন, আমাদের প্রধান নির্বাচন কমিশনার যা বলেন, তা শুনে দেশের জনগণ ছি ছি বলে। সুতরাং এই ছি ছি এর বক্তব্যে দেশের মানুষের কোনো আস্থা আছে বলে আমার মনে হয় না।

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচনে যাওয়া অর্থহীন। বর্তামন ইসি এবং সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না। স্বতন্ত্র কেউ নির্বাচন করতেই পারে। তবে দলের কেউ নির্বাচনে অংশ নিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর সময় উপস্থিত ছিলেন- তাঁতী দলের সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম খান, সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদসহ দলটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা।

মানবকণ্ঠ/এসএস