জাবিতে সেলিম আল দীনের প্রয়াণ দিবস পালিত

‘স্বদেশের ভূগোলে রচ শিল্পনিখিল’ এই স্লোগানকে ধারণ করে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের আয়োজনে সেলিম আল দীনের এগারোতম প্রয়াণ দিবস পালিত হয়েছে। সোমবার বেলা সাড়ে ১২টায় এ উপলক্ষে নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ থেকে একটি স্মরণযাত্রা সেলিম আল দীনের সমাধিস্থলে গিয়ে শেষ হয়। স্মরণযাত্রায় নাট্যব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের ব্যক্তিবর্গ, সেলিম আল দীনের আত্মীয়-স্বজন প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন। পরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামের পক্ষ থেকে প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আমির হোসেন ও কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মনজুরুল হক সেলিম আল দীনের সমাধিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক ড. সেলিম আল দীনের সমাধিতে আরও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন বাংলাদেশ গ্রামথিয়েটার, ঢাকা থিয়েটার, সেলিম আল দীন ফাউন্ডেশন, তালুকনগর থিয়েটার, স্বপ্নদল ঢাকা, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, জাহাঙ্গীরনগর থিয়েটার, পুতুল নাট্য গবেষণা কেন্দ্র, ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র, নাটক সংসদ, কলমা থিয়েটার, ভোর হোল, শহীদ টিটু থিয়েটারসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পী ও কলাকুশলীবৃন্দ।

শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের পর সেলিম আল দীনের শিল্পসঙ্গী অধ্যাপক ড. আফসার আহমদ বলেন, সেলিম আল দীন তার রচনাকে তত্ত্বে রূপদান করেছেন। নতুন প্রজন্মের শিক্ষক-গবেষকগণ তার তত্ত্ব বিশ্লেষণ করবেন।

প্রয়াণ দিবস উদযাপন পর্ষদের আহবায়ক অধ্যাপক ড. আমিনুল ইসলাম বলেন, সেলিম আল দীন বাংলা নাটককে দেশীয় স্বকীয়তা দান করেছেন।

দুই দিনব্যাপী প্রয়াণদিবস উপলক্ষে মঙ্গলবার বারীণ ঘোষের ক্যামেরায় সেলিম আল দীনের আলোকচিত্র প্রদর্শনী, ‘সেলিম আল দীন ও এই যে আমি: অন্তর্গত আলোক’ শীর্ষক আলোচনা এবং সন্ধ্যায় নাটক চন্দ্রাবতী মঞ্চায়ন করা হয়। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পুরাতন কলাভবন সংলগ্ন মৃৎমঞ্চে টাঙ্গাইলের মহাদেব সঙযাত্রার ‘সঙযাত্রা’, সন্ধ্যায় সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে কিশোরগঞ্জের ইসলাম উদ্দিন পালাকার ও তার দলের ‘পালাগান’ পরিবেশন করা হবে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ