ছেলের শাবলের আঘাতে বাবা নিহত

নরসিংদীতে ছেলের শাবলের আঘাতে বাবা ফজলুল করিমের (৫৫) মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মাসুম মিয়াকে (২৮) আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (০৯ নভেম্বর) সকালে শহরের চৌয়ালা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ফজলুল করীম ওই এলাকার বাসিন্দা।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ নিহত ফজলুল করীম চৌয়ালা মার্কেটে মুদি মালের ব্যবসা করতেন। আর তা দিয়েই ফজলুল করীম তিন ছেলে ও তিন মেয়েকে নিয়ে তার সংসার চলত। কিন্তু ৬ বছর আগে নিহতের প্রথম পক্ষের স্ত্রী মারা গেলে তিনি আবার বিয়ে করেন। দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী নিয়ে ভালো ভাবেই চলছিলো তার সংসার। কিন্তু তাতে বাধা দেয় নিহতের মেঝো ছেলে মাসুম মিয়া। মাসুম চাইতো তার বাবা ফজলুর করীম যেন তার সম্পদ ভাগ-বাটোয়ারা করে দেয়। কিন্তু ফজলুর করীম তা করতে চায়নি। এই নিয়ে মাসুম প্রায়ই তার সৎ মায়ের উপর নির্যাতন করত। এর মধ্যে ফজলুর করীমের শ্বশুর অসুস্থ হয়ে পড়লে তার স্ত্রী বাবার বাড়িতে যায়। তখন থেকে তিনি সেখানেই থাকতেন। আজ শুক্রবার দুপুরে তার মেয়ের জামাই বিদেশ থেকে আসার কথা শুনে ফজলুর করীম সকালে বাড়িতে যান। নিজে তৈরি হয়ে মেয়ের জামাইকে আনতে বাড়ি থেকে বের হয়ে অটো রিকশায় উঠেবেন ঠিক তখন তার ছেলে মাসুম পেছন থেকে শাবল দিয়ে তার ঘাড়ে কুপ দেয়। আর ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাসুম মিয়াকে আটক করেছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.