ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের ব্যতিক্রমধর্মী উদ্যোগ ‘গুডবুক’

অপসংস্কৃতি, মাদকসহ অশিষ্ট কাজ থেকে দূরে রাখার জন্য সারাদেশে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ‘গুডবুক’ বিতরণের উদ্যােগ নিয়েছেন ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরীর শোভন।

এ উদ্যোগের ব্যাপারে ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সারাদেশের যোগ্য নেতাদের স্থান হয় ভালো কাজের মাধ্যমে। শেখ হাসিনার সেই ধারণাকে কেন্দ্র করে দেশের সকল ছাত্র-ছাত্রীদের অপসংস্কৃতি, মাদকসহ অশিষ্ট কাজ থেকে দূরে রাখার জন্য গুড বুক বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এই গুডবুকের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা দৈনিক একটা ভাল, সৃজনশীল ও সৃষ্টিশীল কাজ করে গুডবুকে লিপিবদ্ধ করবে আর এক মাস শেষে তাদের মধ্যে থেকে ভাল ছাত্র-ছাত্রী নির্বাচিত করা হবে। এর ফলে ছাত্রছাত্রীরা সৃজনশীল ও মানবিক কাজে উৎসাহিত হয়ে একদিন বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা ও শেখ হাসিনার মানবিক বাংলাদেশ গড়বে।

শোভন বলেন, একটি শিক্ষার্থীকে তার শৈশবে যে শিক্ষা প্রদান করা হয়, শিশুটি সে ভাবাদর্শে মনস্তাত্ত্বিক ভাবে বেড়ে উঠে। সুতরাং একজন শিশুর জন্য তার শৈশবের শিক্ষাটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পারিপার্শ্বিকভাবে একটি শিক্ষার্থী যদি শিশুকাল থেকে সাহিত্য সংস্কৃতির প্রতি অনুরাগী হয়ে উঠে, তাহলে তার জীবনাবোধ, জীবনাচরণে হয়ে উঠতে পারে একজন প্রকৃত মানুষ। নৈতিকতা ও অবক্ষয়ের মরণব্যাধি তাকে স্পর্শ করতে পারে না। তবে এক্ষেত্রে ব্যতিক্রমও ঘটে না তা নয়, তবে ব্যতিক্রম কখনো উদাহরণ হতে পারে না। এ জন্য পরিবার হওয়া উচিত তার প্রকৃত পাঠশালা। অভিভাবকদের উচিত শিশুকালেই তার সন্তানদের পড়ালেখার পাশাপাশি তার কোন বিষয়ে আগ্রহ আছে তার দিকে লক্ষ্য রাখা।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, বর্তমানে একটি প্রজন্ম সাহিত্য সংস্কৃতির এই বিষয়গুলো থেকে অনেক দূরে। এই বিষয়গুলো নিয়ে তারা ভাবে না, কিংবা পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণে তাদের সম্পৃক্ত করা কঠিন থেকে কঠিনতর হচ্ছে। আমি চাই বাংলাদেশের প্রত্যন্তাঞ্চল থেকে মেধাবী শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল বাংলাদেশের কারিগর হোক। তাই এই গুডবুকের উদ্যোগ নিয়েছি।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ