ছাগল যখন মেয়র

ছাগল যখন মেয়র

যুক্তরাষ্ট্র মানেই অদ্ভুত বিচিত্র এক দেশ। নানা অবাক কাণ্ড ঘটে দেশটিতে। দেশটির উত্তর-পূর্বে নিউ ইংল্যান্ডের একটি রাজ্য ভারমন্ট। সেখানকার রুটল্যান্ড কাউন্টির ছোট্ট শহর ফেয়ার হ্যাভেন। এবার সেই শহরে মেয়র নির্বাচিত হয়েছে একটি ছাগল। মুখে মুখে নয়, সরাসরি ভোটে বিজয়ী হয়েছে এই পোষা প্রাণী। এর নাম লিঙ্কন। এরই মধ্যে দায়িত্বও বুঝে নিয়েছে সে। ম্যা, ম্যা বলে কাজও করছে। শুনতে অবাক ঘটনাটি মার্কিন মুলুকে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। যদিও পোষা প্রাণীর নির্বাচিত হওয়ার খবর এটা নতুন নয়। তারপরও…। পশু বলে কথা! আলোড়ন তো হবেই! আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নিউইয়র্ক শহরের সঙ্গেই ফেয়ার হ্যাভেন শহর। নিরিবিলি ছিমছাম এ শহরের জনসংখ্যা মাত্র ২ হাজার ৫০০ জন। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে পারে- এত মানুষ থাকতে মেয়র পদে কেন পশু নির্বাচনে অংশ নিল? সেখানে কি এ পদের জন্য কোনো যোগ্য লোক নেই? বিনয়ের সঙ্গে এ প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে- হ্যাঁ, তা আছে। বড় কথা হলো এ শহরটা এতদিন সামলাতেন জোসেফ গান্টার। তার মাথাতেই আসে মেয়র পদে কোনো পোষা প্রাণী বসানোর। আর এতে সায় দেন সেখানকার বাসিন্দারা। তারা দ্বিমত করেননি। গান্টার বলেন, গণতন্ত্রের এটাই সেরা নিদর্শন। মার্কিন মুলুকের সব শহরে যখন মেয়র পদের জন্য হুড়োহুড়ি চলছে, তখন তার শহর গণতন্ত্রে বিশ্বাস রেখে একটু আলাদা পথেই হাঁটতে চেয়েছে।

তিনি বলেন, লিঙ্কন বেশ ভদ্র ছাগল। মেয়র পদের জন্য ১৬টি পশুর মধ্যে জোরদার লড়াই হয়েছে। কুকুর, বিড়াল- সবরকম পশুই মেয়র হওয়ার জন্য এগিয়ে আসে। ১৩টি ভোট পেয়ে কুকুর স্যামিকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যায় লিঙ্কন। স্যামি পেয়েছে ১০টি ভোট। আর বাকিরা সব মিলিয়ে ৩০টি ভোট। তবে গান্টারের দুঃখ, মেয়র পদের জন্য মাত্র ৫৩টি ভোট পড়েছে। পরের বছর অবশ্যই অনেক বেশি ভোট পড়বে বলে আশা রাখেন তিনি। মেয়র লিঙ্কনকে কিছু নিয়ম-কানুন শেখানো হচ্ছে জানিয়ে গান্টার বলেন, ২০১৮ সালে মিশিগানের ওমেনার মেয়র নির্বাচিত হয় বিড়াল সুইট টার্ট। ওই ঘটনা তাকে উত্সাহ জুগিয়েছে। সেই থেকে তিনি তার শহরের জন্য ব্যতিক্রমী কিছু করার কথা ভাবেন। যেমন ভাবনা, তেমন কাজ। ছাগলকে মেয়রের চেয়ারে বসানোর ব্যবস্থা করেন তিনি। বলেন, শেখানো পড়ানো হয়ে গেলে আর কয়েকদিন বাদেই হয়তো সরকারি অনুষ্ঠানে ছাগল লিঙ্কনকে প্যারেড করতে দেখা যাবে। গোটা শহর অপেক্ষা করছে সে দিনের জন্য। হয়তো গোটা বিশ্বও দিনটি দেখার অপেক্ষায় রয়েছে। তিনি আরো বলেন, এরপর স্কুল পড়ুয়াদেরও সরকারি কাজে নিযুক্ত করব।

সরকারি পদে পশু বসানোর ঘটনা নতুন কিছু নয়। ১৯২২ সালে ব্রাজিলের ফোরটালেজা শহরের সিটি কাউন্সিলর হয়েছিল একটি ছাগল। ১৯৮১-৯৪ সাল পর্যন্ত ক্যালিফোর্নিয়ার সুনোলে মেয়র ছিল ব্ল্যাক ল্যাব্রাডর বস্কো। ১৯৯৭ সালে স্টাবস নামে একটি বিড়াল আলাস্কার একটি শহরের মেয়র নির্বাচিত হয়। ২০১৪ সালে মিনেসোটার করমোরান্ট শহরের ডিউক নামে একটি কুকুর মেয়র নির্বাচিত হয়।

মানবকণ্ঠ/এসএস