চারবছর ধরে কিশোরীকে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ

বাড়ির ছাদে চারবছর ধরে ১৬ বছরের এক কিশোরীকে ত্রমাগত ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ভাই ও ভাইয়ের বন্ধুদের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ভাইসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ভারতের দক্ষিণের শহর হায়দরাবাদে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই কিশোরীর অভিযোগ ধর্ষণের ঘটনা মোবাইলে ভিডিও করে তা অন্যদের দেখাতো অভিযুক্ত। এরপর ওই ভিডিও দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে কিশোরীকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে চলে অভিযুক্তের বন্ধুরাও।

ভিকটিমের ভাই জানিয়েছে, গত চার বছরে পরিবার কিছুই জানতে পারেনি। ঘটনাটি সামনে আসে যখন কিশোরীকে গত মাসে হায়দরাবাদের ভরসা কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। কিশোরীর জবানবন্দিতে পাওয়া তিন প্রধান অভিযুক্তকেই পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

ওই কিশোরী পুলিশকে জানিয়েছে, তার এক ভাই তাদেরই বাড়ির ছাদে তাকে ধর্ষণ করতো এবং মোবাইলে ভিডিও ধারণ করতো। কিশোরীর পানীয়তে মাদক জাতীয় কিছু মিশিয়ে দেওয়া হতো। ওই ভিডিও দেখিয়েই তাকে দিনের পর দিন ধর্ষণ করতো অভিযুক্ত। এরপর কিশোরীর ধর্ষণের ভিডিও অভিযুক্ত তার বন্ধুদেরও দেখাতে শুরু করে এবং তারাও কিশোরীকে ধর্ষণ করে দিনের পর দিন।

ধর্ষণের শিকার কিশোরীর পরিবারের অভিযোগ, ‘অভিযুক্তদের মধ্যে দুজনকে সাক্ষী বানিয়েছে পুলিশ। কিন্তু পুলিশ অভিযুক্তদের কী করে সাক্ষী বানাতে পারে। আদালতে যদি তারা তাদের জবানবন্দি অস্বীকার করে, ত‌খন কী হবে? আমরা চাই অভিযুক্তদের দ্রুত সাজা হোক।’‌

কিশোরী জানিয়েছে, তিনজন মূল অভিযুক্ত ছাড়াও আরও আটজন তাকে ধর্ষণ করেছে। তাদের মধ্যে সাক্ষীরাও রয়েছে। এরপরই তার পরিবার এবং প্রতিবেশীরা এ ঘটনায় ওই এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ