চট্টগ্রামে ২৩ বছর ধরে আংশিক কমিটিতেই ঘুরপাক খাচ্ছে নগর স্বেচ্ছাসেবক দল

চট্টগ্রাম ব্যুরো :
আহ্বায়ক কমিটি ও আংশিক কমিটির মধ্যেই সীমাবদ্ধ আছে চট্টগ্রাম নগর সেচ্ছাসেবক দলের কমিটি। ২৩ বছর ধরে একই অবস্থায় চলতে থাকলেও কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার কোনো পদক্ষেপ এখনো দেখা যাচ্ছে না। এরই মধ্যে সম্প্রতি কেন্দ্র ঘোষিত আংশিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু কারাগারে থাকায় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা নিয়ে আরো জঠিলতা দেখা দিয়েছে।
১৯৯৫ সাল থেকে চট্টগ্রাম নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন সৈয়দ আজম উদ্দিন ও এসকে খোদা তোতন। আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে তারা দলের নেতৃত্বে থাকলেও নানা জঠিলতায় কমিটি গঠন হয়নি নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের। ২০০৫ সালের ৮ জুন সম্মেলনের মাধ্যমে সৈয়দ আজম উদ্দিনকে সভাপতি ও এসকে খোদা তোতনকে সাধারণ সম্পাদক করে নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের দুই সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছিল। একই ব্যক্তিদের নিয়ে গঠন করা দুই সদস্যের আংশিক কমিটিও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করতে পারেনি। তের বছর পর চলতি বছরের ২৬ জুলাই ৭ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্র। আংশিক কমিটিকে পরবর্তী একমাসের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের নির্দেশনা দেয়া হয়। কিন্তু দুইমাস অতিবাহিত হলেও এখনো কেন্দ্রে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের প্রস্তাব পাঠাতে পারেনি নগর স্বেচ্ছাসেবক দল। ফলে পূর্বের মতো আংশিক কমিটিতেই আটকে থাকার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে বিএনপির এই অঙ্গসংগঠনটিতে।
জানতে চাইলে সদ্য ঘোষিত কমিটির সভাপতি এইচ এম রাশেদ খান মানবকণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের সাধারণ সম্পাদক এখন জেলে আছেন। ওনার জন্য আমরা একটু অপেক্ষা করছি। আমাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি প্রায় রেডি (প্রস্তুত) আছে। সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের যৌথ স্বাক্ষরে কমিটি পাঠানোর কথা। একটু সময় নিচ্ছি, এরমধ্যে সাধারণ সম্পাদক না এলেও কমিটি পাঠিয়ে দেয়া হবে। কেন্দ্র থেকে ১৫১ সদস্যের কমিটি পাঠানোর নির্দেশনা আছে। আমাদের প্রস্তাবিত কমিটি এর চেয়ে একটু বেশি সদস্যের হতে পারে।’
২৬ জুলাই নগর কেন্দ্র থেকে স্বেচ্ছাসেবক দলের ৭ সদস্যের আংশিক কমিটির ঘোষণা আসে। নগর ছাত্রদলের ত্যাগী ও পদবঞ্চিত নেতাদের নিয়েই মূলত স্বেচ্ছাসেবক দলের আংশিক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক এইচ এম রাশেদ খানকে সভাপতি এবং নগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এ ছাড়া সাবেক ছাত্রদল নেতা তোফাজ্জেল হোসেন সিনিয়র সহসভাপতি, খুলশী থানা ছাত্রদল সভাপতি আসাদুজ্জামান দিদারকে সহসভাপতি, নগর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক আলি মর্তুজা খান সহসভাপতি, নগর ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক জমির উদ্দিন নাহিদকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং নগর ছাত্রদলের সহসভাপতি জিয়াউর রহমান জিয়াকে সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে। আংশিক কমিটি ঘোষণার একমাস শেষ না হতেই গ্রেফতার হন নগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু। ১৫ আগস্ট সন্ধ্যায় নগরীর ফয়’স লেক এলাকা থেকে খুলশী থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। সাধারণ সম্পাদক গ্রেফতার হয়ে জেলে যাওয়াতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের কার্যক্রমও আটকে যায়।