গ্রিন টির মতোই স্বাস্থ্যকর গ্রিন কফি

স্বাস্থ্য সচেতনদের কাছে এখন গ্রিন টি বেশ জনপ্রিয়। এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অন্যান্য উপাদানের কারণে চিকিৎসক, ডায়েটিশিয়ান, এমনকি বিউটিশিয়ানরাও গ্রিন টি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তবে গ্রিন টি যতটা জনপ্রিয়, গ্রিন কফি কিন্তু এখনো ততটা নয়। গ্রিন কফিরও রয়েছে প্রচুর গুণ। ফলে ধীরে ধীরে গ্রিন কফিও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ডায়েটিশিয়ান, চিকিৎসকদের কাছে।

গ্রিন কফি রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বাড়াতে সাহায্য করে। এর মধ্যে থাকা ক্লোরোজেনিক এসিড বা সিজিএ রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখে। ফলে ডায়াবেটিসের রোগীদের জন্য গ্রিন কফি অত্যন্ত উপকারী। যারা হাইপারটেনশনে ভোগেন, তাদের অবশ্যই নিয়মিত গ্রিন কফি পান করা উচিত।

এই কফি উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে সাহায্য করে। যদি ওজন কমাতে চান তা হলে অবশ্যই প্রতিদিন এক কাপ গ্রিন কফি রাখুন ডায়েটে। ২০০৬ সালে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী গ্রিন কফি শরীরে মেদ জমতে বাধা দেয়। আনন্দবাজার পত্রিকা