গোঁফ-দাড়ি দিয়ে লুকস বদলাতে চান

গোঁফ-দাড়ি দিয়ে লুকস বদলাতে চান

বলিউডি নায়ক থেকে হালফ্যাশনের তরুণ- দাড়ি-গোঁফের নানা কায়দা-কেতাই ফ্যাশন দুনিয়ার অন্যতম ইন থিং। ক্রিকেট মাঠ কাঁপানো বিরাট কোহলি হোন বা রণবীর সিংহ, গোঁফ-দাড়ির মাধ্যমে নিজের চেহারায় আকর্ষণ আনতে তারা খুবই আগ্রহী। বিরাট বা রণবীরের অনুরাগীরাই কেবল নন, আজকাল অনেক ফ্যাশনদুরস্ত তরুণই চেহারা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে থাকেন গোঁফ-দাড়িতে।

গোঁফ-দাড়ি গজানোর স্বাভাবিক গতি মাঝে মধ্যেই লুকস পরিবর্তনে তাই সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। সমাধান হিসেবে বাজারচলতি বেশ কিছু তেল বা ক্রিম আছে ঠিকই। যাতে দাড়ি-গোঁফ দ্রুত জন্মায়, ঘনত্বও বাড়ে। কিন্তু সেসব সবার ত্বকের জন্য উপযোগী নয়। কোনো কোনো ক্ষেত্রে ক্রিম বা তেলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়। তাই অনেকেই ইচ্ছা থাকলেও সেসব ব্যবহার করতে পারেন না।

তা বলে কি গোঁফ-দাড়ির কেতায় ফ্যাশন করায় লম্বা দাঁড়িও পড়ে যাবে? তা কেন? বরং ঘরোয়া বেশ কিছু উপায় অবলম্বন করলে আপনিও পেতে পারেন ঘন গোঁফ-দাড়ি। রূপবিশেষজ্ঞ ঝরনা সিংহ জানালেন তেমন কিছু নিয়ম।

ইউক্যালিপটাস রয়েছে এমন কোনো ক্রিম সংগ্রহে রাখুন। প্রতি দিন এমন ক্রিম মাখলে গোঁফ-দাড়ি ঘন হয়।

ঘন দাড়ি পাওয়ার লোভে অনেকেই বারবার দাড়ি কাটেন। সে ধারণা ঠিক নয়, বরং গোঁফ-দাড়ির বৃদ্ধি ও ঘনত্বের জন্য অন্তত এক থেকে দেড় মাস অন্তর ছাঁটুন।

চুলের মতোই গোঁফ-দাড়ি গজাতে সাহায্য করে পেঁয়াজের রসের সালফার। নিয়ম করে সপ্তাহে তিন দিন গোঁফ-দাড়িতে লাগান পেঁয়াজের রস।
ভিটামিন সি ও বি কমপ্লেক্স গোঁফ-দাড়ি বৃদ্ধিতে বিশেষ সাহায্য করে। চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ক্যাপসুল নিন। খাদ্য তালিকাতেও যোগ করুন ভিটামিন সি ও বি কমপ্লেক্সের খাবার।

শুকনো হাত গালে মিনিট পাঁচেক ধরে মালিশ করুন। এতে মুখে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় ও গোঁফ-দাড়ি ঘন হয়ে গজাতে সাহায্য করে।

গরম জলে মুখ ধুয়ে সপ্তাহে এক দিন ভালো করে স্ক্রাব করুন মুখের ত্বক। এতে মুখে রক্ত সঞ্চালন বাড়বে এবং মৃত কোষ ঝরে গিয়ে রোমকূপের মুখ খুলে যাবে। গোঁফ-দাড়ি জন্মাবে সহজে।

মানবকণ্ঠ/এসএস