গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু

শামসুল হক ভূঁইয়া, গাজীপুর :
অবশেষে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিএমপির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। জিএমপি কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান জানান, ইতিমধ্যে গাজীপুর মহানগর পুলিশের লোগো অনুমোদন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
জিএমপির কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান বলেন, আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জিএমপির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। এরপরই শুরু হবে জিএমপির অপারেশনাল কার্যক্রমসহ অন্য কার্যক্রম। ৮টি থানা নিয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি)’র কার্যক্রম শুরু হবে।
গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠনের প্রায় চার বছর পর ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে গঠিত হয় গাজীপুর মহানগর পুলিশ। এর প্রায় ১০ মাস পর জিএমপি লোগো পেল। ইতিমধ্যে জিএমপির আটটি থানার সীমানা এবং লোকবলও নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। আট থানাসহ জিএমপিতে ১১৫২ জনের লোকবলও নির্ধারণ করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
গাজীপুর মহানগর পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান চলতি বছরের ১৮ জুলাই ডিআইজি পদমর্যাদায় জিএমপির কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান। এরপর তিনি ২৪ জুলাই জিএমপির কমিশনার হিসেবে যোগ দেন। গাজীপুর সড়কের পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের পশ্চিম পাশে একটি ভাড়া করা ভবনে জিএমপির সদর দফতরের কার্যক্রম চলছে।
বেলালুর রহমান জানান, ইতিমধ্যে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ৮টি নতুন থানার সীমানা ও অবস্থান নির্ধারণসহ জনবলও নিয়োগ হয়েছে। উদ্বোধন হওয়ার পরই এসব থানার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। জিএমপির নতুন থানা ও এর অধিভুক্ত এলাকা নির্ধারণসহ থানার অবস্থান সীমানা উল্লেখ করা হলো। সদর থানা- (বর্তমান জয়দেবপুর থানা)- এর অধিভুক্ত সিটির ওয়ার্ডগুলো হলো- ১৯, ২০, ২১, ২২, ২৩, ২৪, ২৫, ২৬, ২৭, ২৮, ২৯, ৩০ ও ৩১নং ওয়ার্ড। বাসন থানা (ভোগড়া বাইপাস)-এর অধিভুক্ত ওয়ার্ড হলো- ১৩, ১৪, ১৫, ১৬, ১৭, ১৮নং ওয়ার্ড। কোনাবাড়ী থানার অধিভুক্ত ওয়ার্ডগুলো হলো- ৭, ৮, ৯, ১০, ১১ ও ১২নং ওয়ার্ড। কাশিমপুর থানা (সারদাগঞ্জ পুকুর পাড়)-এর অধিভুক্ত ওয়ার্ডগুলো হলো- ১, ২, ৩, ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ড। গাছা থানা (মালেকের বাড়ি)-এর অধিভুক্ত ওয়ার্ডগুলো হলো- ৩২, ৩৩, ৩৪, ৩৫,৩৬, ৩৭ ও ৩৮নং ওয়ার্ড। পূবাইল থানা (মীরের বাজার রেলক্রসিং সংলগ্ন)-এর অধিভুক্ত ওয়ার্ডগুলো হলো- ৩৯, ৪০, ৪১ ও ৪২ নং ওয়ার্ড। টঙ্গী পূর্ব থানা (বর্তমান টঙ্গী থানা)-এর অধিভুক্ত ওয়ার্ডগুলো হলো- ৪৩, ৪৪, ৪৫, ৪৬, ৪৭ নং ওয়ার্ড (শালিক চূড়া পূর্ণ ও গাজীপুরা পূর্ণ), ৪৮, ৪৯, ৫০ (আংশিক), ৫৫ (আংশিক), ৫৬, ও ৫৭নং (আংশিক) ওয়ার্ড এবং টঙ্গী পশ্চিম থানা (খাঁপাড়া রোড)- সিটির ৫০ (আংশিক), ৫১, ৫২, ৫৩, ৫৪, ৫৫ (আংশিক) ও ৫৭ নম্বর (আংশিক) ওয়ার্ড।
কমিশনার বলেছেন, ইতিমধ্যে এসব থানায় কর্মকর্তা-জনবল নিয়োগ পেয়েছেন এবং তাদের অনুকূলে মোবাইল ফোন নম্বরও বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। থানাগুলো উদ্বোধনের পর এলাকাবাসীকে প্রয়োজনীয় পুলিশি সেবা গ্রহণের জন্য স্ব-স্ব অধিক্ষেত্রভুক্ত থানায় যোগাযোগ করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।
তিনি আরো বলেন, সিটিতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে মাদক নির্মূল, ট্রাফিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ, জঙ্গিবাদ যাতে মাথা চাড়া দিতে না পারে তার জন্য সক্রিয় ভূমিকা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখা (বিশেষ করে সামনের নির্বাচনে) এবং অপরাধ দমনে অন্যান্য নিয়মিত পুলিশিং কার্যক্রম চালানো হবে। ইন্টারনেট কানেক্টিভিটিও শেষ হয়েছে। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ২০১৩ সালের ১৬ জানুয়ারি ৫৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয়।