গাইবান্ধা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি/ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা :
গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটি ইউনিয়নের ভেড়ামারা ব্রিজ সংলগ্ন কিশামত বালুয়া ঘাঘট নদীতে সম্প্রতি বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় জেলার বিভিন্ন এলাকাসহ বাইরের জেলা থেকেও ১৪টি নৌকা অংশ নেয়। নৌকাবাইচ চলাকালে ঘাঘট নদী দু’পাড়ে হাজার হাজার উৎসাহী দর্শক এতদঞ্চলের গ্রামীণ ঐতিহ্য এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা উপভোগ করে। সমাজসেবক প্রকৌশলী বাদল প্রামানিক সারোয়ার হোসেনসহ স্থানীয় যুবকদের উদ্যোগে ও ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম লুডুর আহ্বানে এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি এই নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। শেষে প্রথম বিজয়ীকে একটি মোটরসাইকেল, দ্বিতীয় বিজয়ীকে একটি ফ্রিজ এবং তৃতীয় বিজয়ীকে একটি এলইডি টিভি তাদের হাতে তুলে দেয়া হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা ও নির্দেশনায় ছিলেন সারোয়ার হোসেন। উল্লেখ্য, প্রতিবছরই একই স্থানে এই নৌকাবাইচ দীর্ঘদিন যাবত অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।
এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার নাককাটিতলা ফেরিঘাটে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গত সোমবার বিকেলে নাককাটিতলা ফেরিঘাটের মহানন্দা নদীতে নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে পিরগাছি যুব সংঘ। প্রতিযোগিতায় মোট ৯টি দল অংশ নেয়। ফাইনাল নৌকা বাইচ খেলায় পিরগাছি শরিফ মাঝি দল, নাককাটিতলা সোহবুল মাঝি দল ও মল্লিকপুরের সুনীল মাঝি দল অংশ নেয়। এর আগে ধাইনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে এ নৌকা বাইঁচ ফাইনাল খেলার উদ্বোধন করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মোহা. গোলাম রাব্বানী। নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার ফাইনাল খেলা দেখতে আশপাশের ইউনিয়ন থেকে প্রায় ৮ হাজার নারী পুরুষ ভিড় জমায়। শেষে ফাইনাল খেলায় সুনীল মাঝি দল প্রথম স্থান অধিকার করে। দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে সোহবুল মাঝি দল ও তৃতীয় স্থান অধিকার করে শরিফ মাঝি দল। প্রথম পুরস্কার ছিল একটি ফ্রিজ, দ্বিতীয় পুরস্কার ২১ ইঞ্চি টিভি ও তৃতীয় পুরস্কার ১৭ ইঞ্চি টিভি। পরে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।
এ সময় অংশ গ্রহণকারী নৌকার মাঝিরা প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও খেলায় অংশ নিতে পেরে আনন্দিত বরে জানান। আর আয়োজকরা পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এলাকাবাসীকে আনন্দ দিতে এ আয়োজন আরো বড় পরিসরে করার আশা ব্যক্ত করেন।