গভীর রাতে ২০ ছাত্রীকে হল থেকে বের করে দিল ঢাবি প্রশাসন

গভীর রাতে ২০ ছাত্রীকে হল থেকে বের করে দিল কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে হলে উত্তেজনা তৈরি ও হলের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে গভীর রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি সুফিয়া কামাল হল থেকে কমপক্ষে ২০ জন আবাসিক ছাত্রীকে বের করে দিয়েছে হল কর্তৃপক্ষ।বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১ টা থেকে রাত সাড়ে ১২ টার মধ্যে পর্যায়ক্রমে ৯ জন ছাত্রী হল থেকে বেরিয়ে যান। তবে তারা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেত্রী নাকি কোটা সংস্কার আন্দোলনের পক্ষের শিক্ষার্থীরা- সে বিষয়টি নিশ্চিত করে কেউ কিছু বলেননি।

হলের এক আবাসিক ছাত্রী জানিয়েছেন, গত ১০ এপ্রিল রাতে কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে হলের ভিতর ছাত্রলীগ সভাপতি ইফফাত জাহান এশা’র গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয় আন্দোলনের পক্ষের সাধারণ ছাত্রীরা। ওই ঘটনার সঙ্গে ২৬ জন ছাত্রী জড়িত রয়েছে বলে হল কর্তৃপক্ষ চিহ্নিত করে। এই ২৬ জনের অভিভাবকদের গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে ডেকে আনা হয়। অভিভাবকদের কাছে ছাত্রীদের তুলে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী বলেন, এসব আবাসিক ছাত্রীকে তাদের অভিভাবকরা নিয়ে যাচ্ছেন। এত রাতে কেন ছাত্রীদের থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে-এমন প্রশ্নের জবাবে প্রক্টর বলেন, বিষয়টি হল প্রভোস্ট ভাল বলতে পারবেন।

হলের দারোয়ান সূত্রে জানা গেছে, সন্ধ্যা থেকে অন্তত ১৫ থেকে ২০ জন ছাত্রী হল থেকে বের হয়ে গেছে। সুফিয়া কামাল হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. সাবিতা রেজওয়ানা রহমানের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি ফোনটি রিসিভ করেননি।

রাত সাড়ে ১২ টার দিকে সুফিয়া কামাল হলের সামনে আসেন আবাসিক ছাত্রী রিমির বাবা কামরুল হাসান ও চাচা। রিমির চাচা বলেন, সন্ধ্যায় হল থেকে ফোন করে বলা হয়েছে যে তাদের মেয়েকে যেন রাতের মধ্যেই হল থেকে নিয়ে যাওয়া হয়। হল কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পেয়েই তিনি রিমিকে নিতে এসেছেন। হল থেকে বের করে দেয়া ছাত্রীদের মধ্যে অন্তী , শারমিন ও কামরুণ নাহার লিজার নাম রয়েছে।

মানবকণ্ঠ/ডিএইচ