গণভোটের বিরুদ্ধে রায় দেয়ার অধিকার ইউরোপীয় আদালতের নেই : তুরস্ক

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের ক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত গণভোটের বিরুদ্ধে আপিল করার অধিকার মানবাধিকার বিষয়ক ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদালত বা ইসিএইচআরর নেই বলে জানিয়েছেন তুর্কি বিচারমন্ত্রী বেকির বোজদাগ। খবর এএফপির।
তুরস্কের প্রধান বিরোধীদল রিপাবলিকান পিপলস পার্টি বা সিএইচপি গণভোটের বিরুদ্ধে তার দেশের সাংবিধানিক আদালত  বা ইসিএইচআর এ আপিল করবে বলে ঘোষণা দেয়ার পর বিচারমন্ত্রীর পক্ষ থেকে এ বক্তব্য এলো।
প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের ক্ষমতাকে নিরঙ্কুশ করার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত গণভোটে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে বিরোধী দলের করা আপিল খারিজ করে দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ নির্বাচনী কর্তৃপক্ষ ‘দি হাই ইলেক্টোরাল বোর্ড’ বা ওয়াইএসকে। গণভোটের বিরুদ্ধে যেকোনো ধরনের চ্যালেঞ্জ বাতিল হয়ে যাবে বলেও মন্তব্য করেন বিচারমন্ত্রী।
বৃহস্পতিবার একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেয়া বক্তব্যে বোজদাগ বলেন, বিরোধীদল যদি সাংবিধানিক আদালতে আপিল করে তাহলে এটি বাতিল হওয়া ছাড়া আর কোনো পথ নেই। অন্যদিকে, তারা যদি ইউরোপীয় ইউনিয়ন আদালতে আপিল করেন তাহলে এই ক্ষেত্রেও তারা কোনো সুফল পাবে না। কারণ সংস্থাটির সঙ্গে তুরস্ক যেসব চুক্তি করেছে তাতে তাকে এ অধিকার দেয়া হয়নি।
রোববার তুরস্কে অনুষ্ঠিত গণভোটে দেশটির ৫১.৫ শতাংশ ভোটার হ্যাঁ ভোট দিয়েছেন বলে ওইদিন রাতে ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট এরদোগান। পার্লামেন্টারি শাসনব্যবস্থা থেকে প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির শাসনব্যবস্থায় যাওয়ার ব্যাপারে সংবিধানের ১৮টি ধারা সংশোধন প্রশ্নে ওই গণভোট অনুষ্ঠিত হয়। তুরস্কের বিরোধীদলগুলো অভিযোগ করছে, নিজেকে সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী করার জন্যই এরদোগান এ গণভোট দিয়েছেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস