খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচন নয়: বিএনপি

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবে না দলটির নেতারা। শনিবার দুপুরে রাজধানীর নয়া পল্টনে দলটির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে এ ঘোষণা দিয়েছেন তারা। তারা স্পষ্টভাবে বলেছেন, কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে ছাড়া দেশে কোনো নির্বাচন হবে না।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, অবৈধ সরকার জবরদস্তি মূলকভাবে ক্ষমতায় বসে মানুষের সব অধিকার হরণ করেছে। আজকের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমাদের শপথ হচ্ছে, এই দানবকে অপসারণ করে, দুঃশাসনকে অপসারণ করে গণতন্ত্র ও দেশনেত্রীকে মুক্ত করার জন্য এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য সংগ্রাম অব্যাহত থাকবে। কারাবন্দি খালেদা জিয়াকে ছাড়া দেশে কোনো নির্বাচন হবে না।

তিনি বলেন, আজকের এই দিনে আমরা শপথ করব, এই সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের। এই ফ্যাসিস্ট, গণতন্ত্রবিরোধী, সমাজবিরোধী সরকার বাংলাদেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার ও সমস্ত অধিকার কেড়ে নিয়েছে। রাষ্ট্রের সব সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিয়েছে।’

দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেন, ভাবাবেগহীন, বিবেকহীন সরকার এখানে রয়েছে। তারা কোনো কিছুকেই কর্ণপাত করছে না। কারণ ক্ষমতায় থাকার পথের কাঁটা তিনি (প্রধানমন্ত্রী) রাখতে চান না। যারা বিবেকবান, অন্যায়ের প্রতিবাদ করে, গণতন্ত্রপ্রেমী, যারা মানুষের অধিকার ও ভিন্নমতকে শ্রদ্ধা করে, সেসব লোকই হচ্ছে আজকের প্রধানমন্ত্রী ও অবৈধ সরকারের পথের কাঁটা।

সমাবেশে নিরপেক্ষ নির্বাচনে এত ভয় কেন তা জানতে চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে প্রশ্ন ছুড়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না। তাকে বাইরে রেখে কোনো নির্বাচন গ্রহণযোগ্যও হবে না। জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে সফল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করে গেছেন। বাংলার ইতিহাস থেকে জিয়ার ইতিহাস মুছে ফেলা যাবে না।’

সমাবেশের বক্তব্যে দলটির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, ‘বিএনপিকে সমাবেশ করতে সরকার বিভিন্নভাবে বাধা দিয়েছে। কাল (৩১ আগস্ট) সারারাত নেতাকর্মীদের বাসায়-বাসায় পুলিশ হানা দিয়েছে। এরপরও জনস্রোত ঠেকাতে পারেনি সরকার।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশে স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আপনি যদি খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দিয়ে পুলকিত হন, তাহলে ধরে নেন, স্বল্প দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার সঙ্গে জেলেই আপনার দেখা হতে পারে। ফলে, তা না করে তাকে মুক্তি দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচন দিন, জনগণ যাকে চাইবে, তিনিই সরকার পরিচালনা করবেন।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় আরও বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিলেই যে বিএনপি নির্বাচনে যাবে-কে বলল? সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সংসদ ভেঙে দিতে হবে, নির্বাচনকালীন সরকার নির্দলীয় হতে হবে। নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে।’

এদিকে বিএনপি জনসভা আয়োজনের অনুমতি পাওয়ার দাবি তুললেও অভিযোগ করেছে, জনসভাকে সামনে রেখে রাজধানীসহ সারাদেশে ব্যাপক ধরপাকড়, নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশি, বাড়িতে না পেলে বাসার নারীদের উদ্দেশে অশালীন কথাবার্তা বলা হচ্ছে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ