খালেদাসহ ৭৭ জনের বিরুদ্ধে আজ চার্জশিট দেয়া হতে পারে

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরকারবিরোধী চলমান বিরোধী দলের টানা আন্দোলনের সময় কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে পেট্রলবোমা হামলায় বাসের আট যাত্রী হত্যা মামলার ৭৭ আসামির বিরুদ্ধে আজ বৃহস্পতিবার চার্জশিট কুমিল্লার ৫নং আমলি আদালতে উঠতে পারে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও মামলার আসামি এম কে আনোয়ার মঙ্গলবার মারা গেলে চার্জশিট থেকে তার নাম বাদ দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে চলতি বছরের ২ মার্চ মামলার প্রথম তদন্তকারী কর্মকর্তা চৌদ্দগ্রাম থানার তৎকালীন এসআই মো. ইব্রাহিম সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ ৭৮ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদান করলে কুমিল্লার পাঁচ নম্বর আমলি আদালতের বিচারক চার্জশিট গ্রহণ না করে অধিকতর তদন্ত করার জন্য জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ প্রদান করেন। জেলা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ও মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা মো. ফিরোজ হোসেন এ কথার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তবে একটি সূত্র জানান, আজ বৃহস্পতিবার পুলিশ চার্জশিট প্রদান না করে আরো অধিকতর তদন্ত করার জন্য সময় প্রার্থনা করতে পারে। যদিও এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. ফিরোজ হোসেন জানান, বিষয়টি আজ আদালতের মাধ্যমে জানতে পারবেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, বিএনপি-জামায়াতসহ ২০ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল-অবরোধ চলাকালে ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি নৈশ কোচ (ঢাকা মেট্রো-ব, ১৪-৪০৮০) চৌদ্দগ্রামের জগমোহনপুর নামক স্থানে পৌঁছলে দুর্বৃত্তরা বাসটি লক্ষ্য করে পেট্রলবোমা নিক্ষেপ করে। এতে ওই বাসের ঘুমন্ত ৮ যাত্রী নিহত হন।

এ ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানার এসআই নুরুজ্জামান হাওলাদার বাদী হয়ে থানায় হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেন। বিস্ফোরক আইনের মামলায় চলতি মাসের ৯ অক্টোবর কুমিল্লার আদালতে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ ৪৬ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদান করে পুুলিশ। পরে কুমিল্লার জেলা ও দায়রা জজ বেগম জেসমিন আরা বেগম মামলার ৫১নং আসামি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ ৪৬ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

আজ বৃহস্পতিবার চৌদ্দগ্রামে বাসে পুড়িয়ে ৮ জনকে হত্যা মামলার ঘটনায় চার্জশিট প্রদান করবেন কিনা জানতে চাইলে কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা বিভাগের পরিদর্শক ও মামলার অধিকতর তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. ফিরোজ হোসেন বলেন, আদালত মামলাটি পুঙ্খানুভাবে অধিকতর তদন্ত করে আজ ২৬ অক্টোবর চার্জশিট দিতে বলেছে। আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে মামলাটি তদন্ত করছি। আজ আদালতে আমরা চার্জশিট দেব কিনা কিংবা আরো সময় চাইব কিনা তা আপনারা আদালতের মাধ্যমে জানতে পারবেন। এ মুহূর্তে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে আমি মিডিয়াকে বলতে পারব না। তবে তিনি জানান, মামলার ৭৮ আসামির মধ্যে সাবেক মন্ত্রী এম কে আনোয়ার সাহেব মারা যাওয়ার কারণে মামলা থেকে তিনি স্বাভাবিকভাবেই বাদ পড়ে যাবেন। সে হিসেবে আসামির সংখ্যা এখন ৭৭ জন।

তবে একটি বিশেষ সূত্র জানায়, খুব সম্ভবত আজ বৃহস্পতিবার মামলাটি আরো অধিক গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করার জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালতের কাছে সময় প্রার্থনা করতে পারেন। যদিও এ বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করে বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জানার কথা জানিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা মো. ফিরোজ হোসেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস