খন্দকার মোশাররফের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সঙ্গে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই-এর এক কর্মকর্তার ফোনালাপ ফাঁস হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই ফাঁস হওয়া ফোন আলাপকে নির্বাচন বিরোধী ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে বুধবার রাতে কুমিল্লার দাউদকান্দি থানায় রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ এনেছেন সংশ্লিষ্ট উপজেলা চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মোহাম্মদ আলী সুমন।

ড. মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করে দাউদকান্দি মডেল ওসি আলমগীর হোসেন জানান, বুধবার রাত ১২টার দিকে আলী সুমন অভিযোগ করেন। সেটা এখনও মামলা হয়নি। তবে আজ দুপুরের মধ্যে মামলা দায়ের হতে পারে।

অভিযোগে বলা হয়, ড. খন্দকার মোশাররফ (৭৩), পিতা মৃত খন্দকার আশরাফ হোসেন পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইয়ের সঙ্গে কথা বলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র করছেন। এটি রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল।

প্রসঙ্গত খন্দকার মোশাররফের সঙ্গে আইএসআই এজেন্টে কথোপকথনের একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। থাইল্যান্ডভিত্তিক নিউজ পোর্টাল এশিয়ান ট্রিবিউন কথোপকথনের এ সংবাদ ছেপেছে। তাদের দাবি-মেহমুদ নামে ওই ব্যক্তি পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার সার্ভিস ইন্টেলিজেন্সের (আইএসআই) কর্মকর্তা।

মোহাম্মদ আলী সুমনের অভিযোগ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সঙ্গে আইএসআইয়ের এজেন্ট মেহমুদের যে কথোপকথন তাতে স্পষ্টতই বোঝা যায়-তিনি ভোটে জয়ী হতে ষড়যন্ত্র করে রাষ্ট্রবিরোধী অপরাধ করেছেন।

সুমনের অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, খন্দকার মোশাররফ ও আইএসআইয়ের কথোপকথন ১১ ডিসেম্বর এশিয়ান ট্রিবিউন ও ১২ ডিসেম্বর ডিবিসি নিউজে প্রকাশ হয়। এতে শোনা যায়, বিবাদী পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধির সঙ্গে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করেছেন। নির্বাচনে বিজয়ী হতে চীনকে ম্যানেজ করে দিতে বলেন মোশাররফ। বিদেশি শক্তির সহায়তা চেয়ে তিনি রাষ্ট্রদ্রোহ অপরাধ করেছেন।

এদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ড. খন্দকার মোশাররফের ওই কথোপকথন এরই মধ্যে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। তবে মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও এ বিষয়ে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের বক্তব্য জানা যায়নি। ফোনালাপটির সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। এশিয়ান ট্রিবিউন দাবি করছে, ৭ মিনিটের ফোনালাপটির বিষয়ে তাদের কাছে তথ্যপ্রমাণ রয়েছে।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে ফাঁসকৃত ফোনালাপে বিএনপিকে জয়ী করতে আইএসআইয়ের কাছে খন্দকার মোশাররফকে সাহায্য চাইতে শোনা যায়। এ জন্য একপর্যায়ে তিনি চীনকে ম্যানেজ করার জন্য মেহমুদের কাছে সাহায্য চান। তবে মেহমুদ তার জবাবে জানান, চীনের সঙ্গে বিএনপিকে সাহায্যের ব্যাপারে তাদের (আইএসআই) যোগাযোগ চলছে। বিএনপির এ নেতাকে আইএসআইয়ের বিশ্বস্ত বন্ধু বলে আখ্যায়িত করেন। খন্দকার মোশাররফও তাদের বন্ধু হয়েই থাকতে চান বলে মেহমুদকে আশ্বস্ত করেন।

এর আগে গেল মাসে ড. মোশাররফ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীনের ফোনালাপ ফাঁস হয়। এতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে বিএনপির আসন বণ্টন নিয়ে নিজের বিরক্তির কথা প্রকাশ করেন মোশাররফ। এ নিয়ে বিব্রত হয় বিএনপি।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ