কোম্পানীগঞ্জে কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় এক কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার ভোরে চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো— সিরাজপুর ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ছোট রাজাপুর এলাকার জুবলিওয়ালার বাড়ির আব্দুল মুনাফের ছেলে মো. ইউছুপ (২৪) ও চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ছুকানী বাড়ির মৃত আবুল হোসেনের ছেলে সেলিম (৩০)।

ভুক্তভোগী কলেজছাত্রী জানান, গত শনিবার ভোর রাতে সে সাহরি খেয়ে ফেনীতে খালার বাসায় যায় ওই কলেজছাত্রী। পরে রোববার ভোর রাতে সাহরি খেয়ে বাস যোগে বসুরহাট জিরো পয়েন্টে আসে। বসুরহাট জিরো পয়েন্ট নিজ বাড়িতে যাওয়ার জন্য ব্যাটারি চালিত রিকশা চালক মো. ইউছুপের গাড়িতে ওঠে। ইউছুপ তাকে তার নিজ বাড়ির রাস্তায় না নিয়ে উল্টো চরকাঁকড়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের আবু নাছের শেখের আখ ক্ষেতের দিকে নিয়ে যায়। এ সময় গাড়ি চালক ইউছুপ ও সেলিম তাকে জোরপূর্বক পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। পরে আখ ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে মুখ চেপে ধরে হত্যার চেষ্টা করে। এ সময় কলেজছাত্রী শোর চিৎকার করলে স্থানীয় লোকজন এসে ধর্ষকদেরকে আটক করে। পরে পুলিশ এসে কলেজছাত্রীকে উদ্ধার করে। দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় নিয়ে যায়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি সৈয়দ মো. ফজলে রাব্বী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কলেজছাত্রী বাদী হয়ে থানায় গণধর্ষণের মামলা দিয়েছে। চিকিৎসার জন্য কলেজছাত্রীকে সোমবার বিকেলে নোয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মানবকণ্ঠ/এসএস/এফএইচ