কোম্পানি আমলেও ছিল Dhaka!

ঢাকা তার আগের বানান Dacca থেকে বর্তমান বানান Dhaka আনুষ্ঠানিকভাবে পেয়েছে ১৯৮২ সালে। এর আগে বানানটি ছিল Dacca। আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ জাতীয় আর্কাইভসের সংগ্রহে থাকা মানচিত্র ও নথি থেকে জানা যায়, ঢাকার বর্তমান ইংরেজি বানানটি কোম্পানি আমলেও প্রচলিত ছিল।
ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি নিয়োজিত সার্ভেয়ার জেনারেল জেমস রেনেলের (১৭৪২-১৮৩০) ১৭৮০ খ্রিষ্টাব্দের ১ মার্চ প্রকাশিত ঢাকার মানচিত্রে এর ইংরেজি বানান Dacca লেখা হয়। তবে ‘দ্য ঢাকা রেকর্ড কমিটিস কারেস্পন্ডেন্স বুক’-এর ১৮২১ খ্রিষ্টাব্দের ৫ অক্টোবরের একটি নথির শিরোনামের ক্ষেত্রে ঢাকা বানান লেখা হয়েছে বর্তমান রূপে (Dhaka)। ১৮২২ খ্রিষ্টাব্দের ৩০ এপ্রিল কমিটির অন্য একটি নথির একটি পৃষ্ঠায় ঢাকার বানান লেখা হয়েছে Dacca। ১৮২৪ খ্রিষ্টাব্দের ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার কালেক্টরকে লেখা একটি আবেদনপত্রে আবার ঢাকার বানান Dhaka লেখা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে ব্রিটিশ ও পাকিস্তান আমলে ঢাকার ইংরেজি বানানের ক্ষেত্রে রাষ্ট্রীয় কার্যক্রমে ঢাকার ইংরেজি বানানের বর্তমান রূপ আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ১৮৫৯ খ্রিষ্টাব্দে প্রণীত ঢাকা শহরের একটি মানচিত্রে ঢাকার ইংরেজি বানান Dacca লেখা হয়।
১৯৮২ সাল পর্যন্ত সরকারিভাবে এই বানান বজায় থাকে। উনিশ শতকের তৃতীয় দশকে বানানের বর্তমান রূপ Dhaka) ব্যবহৃত হওয়ার পরও ঢাকার বানান Dacca হলো কী করে, জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক জানান, ১৮৪০ থেকে ১৮৪৫ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে ব্রিটিশ শাসকেরা তাদের উচ্চারণ রীতি অনুযায়ী প্রয়োজনীয় বাংলা শব্দের ইংরেজি বানান প্রণয়ন করেন। এ জন্য ঢাকা (Dhaka) হয়ে গেছে ডাক্কা (Dacca)। আশির দশকে সরকারি উদ্যোগে ঢাকার বানান বর্তমান রূপে আনা হলেও অনেক বানানে এখনো ব্রিটিশ আমলের রূপ রয়ে গেছে। ধানমন্ডির আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের সাইনবোর্ড ও অনুষ্ঠানসূচির প্রকাশনা থেকে সে বানান (Dacca) বদল করা হয়েছে ২০০৯ সালে। অবশ্য তাদের কিছু খামে এখনো ঢাকার বানানের আগের আদলটি (Dacca) রয়ে গেছে। বিদেশি কিছু মানচিত্রে এখনো ঢাকার আগের ইংরেজি বানানটি ব্যবহৃত হচ্ছে।
১৯৮২ খ্রিষ্টাব্দের ৪ অক্টোবর সোমবার মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকের মাধ্যমে ঢাকার বর্তমান বানান (Dhaka) করা হয় এবং ৬ অক্টোবর বুধবার বাসস সূত্রে দৈনিক সংবাদের প্রথম পাতায় এই খবর ছাপা হয়। তাতে উল্লেখ করা হয়, এখন থেকে ইংরেজিতে ঢাকার বানান ডাক্কার পরিবর্তে ঢাকা লিখতে হবে। প্রধান সামরিক প্রশাসক লে জে এইচএম এরশাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রি পরিষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সূত্র ও তথ্য : ইন্টারনেট
– নগরে নাগরিক ডেস্ক