কেমিক্যালের তথ্য গোপন করলে শাস্তি: খোকন

পুরান ঢাকায় অবৈধ কেমিক্যালের কারখানা কিংবা গোডাউন থাকলে তার তথ্য দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, ‘ওয়াহেদ ম্যানসন থেকে শুরু হলো পুরান ঢাকার কেমিক্যাল গোডাউনগুলো উচ্ছেদ অভিযান কার্যক্রম। কোনো বাড়ির মালিক কেমিক্যাল থাকার তথ্য না দেন, সেটি যদি পরে জানা যায়, তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শনিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে চুড়িহাট্টায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া ওয়াহেদ ম্যানসনের বেজম্যান্টে থাকা কেমিক্যাল অপসারণ কার্যক্রমের শুরুতে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

ডিএসসিসির মেয়র বলেন, ‘আমরা ভেতরে গিয়ে গোডাউনটা দেখেছি। সেখানে বিপুল পরিমাণ কেমিক্যাল দেখেছি। তাই এর ভেতর যে কেমিক্যাল আছে, সেগুলো কে অপসারণের মধ্য দিয়ে পুরান ঢাকার সম্পূর্ণ এলাকায় যত কেমিক্যাল গোডাউন আছে, সমস্ত কেমিক্যাল গোডাউন থেকে কেমিক্যাল অপসারণ করার মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু করলাম। ’

এ কার্যক্রম ততক্ষণ পর্যন্ত চলবে যতক্ষণ পর্যন্ত এলাকায় কেমিক্যালের গোডাউনের অস্তিত্ব পাওয়া যাবে জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, ‘এসব গোডাউন অপসারণ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। নগরের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

বাসাবাড়ির মালিকদের হুঁশিয়ারি দিয়ে ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ‘এ অপসারণ কার্যক্রমে সব বাড়ির মালিককে অনুরোধ করছি, আপনাদের বাসায় কোনো অবৈধ কেমিক্যালের কারখানা কিংবা গোডাউন থাকলে আমাদের তথ্য দিন। কারণ আপনারা তথ্য না দিলে আমরা বিষয়টি সহজে জানতে পারবো না। প্রসাশনের পক্ষে কাজটি করতে কঠিন হবে। তাই সাধারণ মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে আমাদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন। যদি কোথাও দেখেন কেউ গোপনে কেমিক্যাল স্টোর করছে সঙ্গে সঙ্গেই আমাদের খবর দিন। তথ্য পেলেই আমরা সেগুলো অপসারণ করবো। আর যদি তথ্য না দিয়ে গোপনে কেমিক্যাল স্টোর করার চেষ্টা করেন কেউ, তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কেউ পার পাবেন না।’

পুরান ঢাকায় কোথাও অবৈধ কারখানা থাকলে ডিএসসিসির কন্ট্রোল রুমের ৯৫৫৬০১৪ নাম্বারে কল করেও তথ্য দেয়ার জন্য সাধারণ মানুষকে অনুরোধ করেন মেয়র সাঈদ খোকন। পরে ওয়াহেদ ম্যানসনে থাকা কেমিক্যাল ডিএসসিসির একটি ট্রাকে বোঝাই শুরু করেন সংশ্লিষ্টরা।

কেমিক্যাল গোডাউন অপসারণ কার্যক্রম শুরু করে চলে যাওয়ার সময় মেয়রের পথরোধ করে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয়রা। এ সময় তারা ‘শুধু কেমিক্যাল অপসারণ নয়, গ্যাস সিলিন্ডারও অপসারণ করুন, করতে হবে। তাৎক্ষণিক তাদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়ে মেয়র বলেন, ‘আপনাদের দাবি মেনে নিচ্ছি আমরা। ’ এলাকায় যত ঝুঁকিপূর্ণ গ্যাস সিলিন্ডার আছে, সেগুলোও অপসারণ কার্যক্রম চালানো হবে বলেও তিনি ঘোষণা দেন।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ