কীর্তনখোলার তীরে কবিতা-আড্ডায় গ্রন্থ উৎসব

লেখক ও বই পরিচিতি, সাহিত্য আড্ডা, কবিতা পাঠ এবং নৌ ভ্রমণের মধ্য দিয়ে বরিশালে আমাদের লেখালেখির উদ্যোগে উদযাপিত হলো দক্ষিণবাংলা গ্রন্থ উৎসব ২০১৮। দুই পর্বে বিভক্ত এ আয়োজনে প্রথম পর্বে ছিলো উদ্বোধনী এবং লেখক ও বই পরিচিতি আর দ্বিতীয় পর্বে কবিতা পাঠ ও সম্মাননা প্রদান।

অনুষ্ঠানের আয়োজক কবি শফিক আমিনের সভাপতিত্বে প্রথম পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শের–ই–বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ কবি ডা. ভাষ্কর সাহা। এবং বানারীপাড়া ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ কবি আফরোজা বেগম রোজি সভাপতিত্বে দ্বিতীয় পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন দৈনিক মুক্ততথ্য সম্পাদক কবি শাহীন রেজা। বিশেষ অতিথি ছিলেন ছড়াকার তপংকর চক্রবর্তী, কবি সাইফুল্লাহ নবীন, কবি অর্নব আশিক, কবি মাসুদ আলম বাবুল, কথা সাহিত্যিক মাহবুব লাভলু, কবি মুস্তফা হাবিব, কবি আনোয়ার হোসেন বাদল, আব্দুল গাফ্ফার খান, নাট্যজন আবদুল হাকিম, কবি মুহম্মদ মহসিন, বাহাউদ্দিন গোলাপ, কবি গাজী লতিফ প্রমুখ।

কবিতা পাঠ এবং শুভেচ্ছা পর্বে অংশ গ্রহণ করেন কবি আল হাফিজ, আবিদ আজম, আলম রায়হান, সাইদ তপু, লায়লা কবীর, মিনতি রানী দাস, আফরোজা বেগম, মীম ওমর ফারুক, জান্নাতুল ফেরদাউস শিশির, শমরিতা শর্মী, মিনা গাঙ্গুলী, স্নিগ্ধা নীলিমা, আলোক মিত্র, গাজী হানিফ, মাহমুদা খানম, প্রিন্স বিশ্বাস, শামিমা সুলতানা, হোসনেয়ারা বেগম, জেসমিন আক্তার, দীপ্তি ইসলাম, ইয়াসীন হীরা, জাহাঙ্গীর হোসাইন মানিক, রাজিব আহমেদ, বশিরুজ্জামান বশির, হিমেল রহমান, ওবায়দুল ইসলাম, মাসুদ আলম বাবুল, শাহরিয়ার প্রমুখ।

কবি ডা. ভাস্কর সাহা বলেন, জীবনানন্দের স্মৃতি বিজড়িত বরিশালকে আমরা সাহিত্যের প্রাণকেন্দ্রে পরিণত করতে চাই।

কবি শাহীন রেজা বলেন, একমাত্র কবিতাই বাঁচাতে পারে বিপন্ন বিশ্বকে। কীর্তনখোলার পাড় থেকে আমরা শান্তির পৃথিবী রচনার ডাক দিয়ে গেলাম।

পরে সন্ধ্যায় কীর্তনখোলায় নৌ ভ্রমণের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী গ্রন্থ উৎসব সমাপ্ত হয়। উৎসবে দক্ষিণবাংলার বিভিন্ন জেলা থেকে আসা কবি লেখকেরা তাদের ২০১৮ সালে প্রকাশিত বই সমুহ প্রদর্শন করেন।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ