কাদেরের চিকিৎসায় হাসপাতালে সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ‘জীবন শঙ্কায়’ থাকায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে চিকিৎসক দল। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে নেমে রাত পৌনে ৮টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে প্রবেশ করেন চিকিৎসকরা।

এর আগে, ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড রোববার সন্ধ্যায় জানায়, মাউন্ট এলিজাবেথের এই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে সিদ্ধান্ত নেবেন। তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া সম্ভব না হলে তারা এখানেই চিকিৎসা দেবেন।

মেডিকেল বোর্ড আরও জানায়, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল নয়। কিছুটা উন্নতি করলেও এখন শঙ্কা কাটেনি। এই অবস্থায় তাকে দেশের বাইরে নেয়ার পক্ষে নয় মেডিকেল বোর্ড। ওবায়দুল কাদেরকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। হৃদযন্ত্রে পাওয়া তিনটি ব্লকের মধ্যে একটিতে স্টেন্ট (রিং) পরানোর পরও তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।

এ তথ্য জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিক মেডিকেল বোর্ডের সদস্য ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিভেন্টিভ কার্ডিওলজি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক।

ডা. হারিসুল হক বলেন, সকাল থেকেই ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা এই ভালো এই মন্দ। উন্নতি-অবনতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। আমরা যতটুকু বুঝতে পারছি, তার শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন।

এর আগে দুপুরে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের প্রধান বিএসএমএমইউ কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আলী আহসান জানান, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক। তার শরীর এতটাই নাজুক যে বিদেশ নেয়ার মত নয়। তিনি ‘এই ভালো, এই খারাপ’ পরিস্থিতিতে রয়েছেন। তার শারীরিক অবস্থা ক্রমেই সংকটাপন্ন হচ্ছে। ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে তার সার্বিক অবস্থা সম্প‌র্কে কিছুই বলা যাচ্ছে না। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়ার কথা চিন্তা করা হলেও এই মুহূর্তে তাকে সিঙ্গাপুর নেয়ার মতো প‌রি‌স্থি‌তি‌তে নেই।

উল্লেখ্য, রোববার সকালে ওবায়দুল কাদের হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেতুমন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের জানান, রোববার ফজরের নামাজ শেষে হঠাৎ করেই তার শ্বাসপ্রশ্বাসে সমস্যা হচ্ছিল। সঙ্গে সঙ্গে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তার শরীর চেকআপ করেন। পরামর্শ দেন দ্রুত এনজিওগ্রাম করার। পরে তার এনজিওগ্রাম করা হয়।

আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া জানান, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বুকে ব্যাথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। এরপর তার এনজিওগ্রাম শেষে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানান, ওনার হার্টে ব্লক ধরা পড়েছে। ওনার সুস্থতার জন্য দেশবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে দোয়া কামনা করেছে আওয়ামী লীগ।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ