কাণ্ডজ্ঞান হারিয়ে সরকার এখন উন্মাদ: ফখরুল

সবক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়ে কাণ্ডজ্ঞান হারিয়ে সরকার এখন উম্মাদ হয়ে পড়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার এক বিবৃতিতে তিনি এই দাবি করেন। বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, মামলা, বাড়িতে বাড়িতে পুলিশি হামলা ও হয়রানির প্রেক্ষিতে দেয়া এই বিবৃতিতে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব তার দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার, হয়রানির নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচিতে জনতার ঢল উঠবে বলেই সরকার বেপরোয়া হয়ে নিপীড়ন নির্যাতনের পথ অবলম্বন করেছে। চিরদিন ক্ষমতায় থাকার স্বপ্নে বিভোর হয়ে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ভেঙে ফেলে এরা স্বৈরতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে।’

তিনি বলেন, ‘সরকার জুলুমের সুদীর্ঘবাহু বিস্তৃত করে বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি বানচাল করার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়েছে।’

গত শুক্রবার রাত থেকে শুরু করে ঠাকুরগাঁও জেলার অন্তর্গত সদর থানার ৮নং ওয়ার্ড বেগুনবাড়ী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবদুল হান্নান, ৬নং ওয়ার্ড বেগুনবাড়ী ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি আবদুস সালাম, ৫নং ওয়ার্ড বেগুনবাড়ী ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি সেকেন্দার আলী, ঠাকুরগাঁও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহসভাপতি আক্কাস আলী এবং রানীসংকৈল থানার জয়নন্দ ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলমকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে বলে জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘একইসঙ্গে বেগুনবাড়ী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেনসহ ৪৫ জনের নামে ও আরো অজ্ঞাত ২০০ জনকে আসামি করে মিথ্যা, বানোয়াট এবং ভিত্তিহীন মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।’ বিবৃতিতে তিনি গ্রেফতারকৃত নেতাদের মিথ্যা বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার করে অবিলম্বে নিঃশর্ত মুক্তি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি বন্ধের দাবি জানান।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ