কদবেল কিডনি সুরক্ষিত রাখে

আমাদের হাতের কাছে পাওয়া প্রিয় একটি ফল কদবেল। পুষ্টির বিচারে হেলাফেলার এই কদবেলের জুড়ি মেলা ভার। কাঁঠাল, পেয়ারা, লিচু, আমলকি, আনারসের চেয়েও বেশি উপকারী। সম্প্রতি চিকৎসা বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, কদবেল কিডনি সুরক্ষিত রাখে। লিভার ও হার্টের জন্যও উপকারী। তা ছাড়া হজমের সমস্যা ও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণেও এটি দারুণ কার্যকর। ব্রিটেনের সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইলের স্বাস্থ্য বিষয়ক এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের মতে, ১০০ গ্রাম কদবেলে রয়েছে ২.২ গ্রাম মিনারেল, ফ্যাট ০.১ গ্রাম, শর্করা ৮.৬ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৫.৯ মিলিগ্রাম, আয়রন ০.৬ মিলিগ্রাম, ভিটামিন ই ০.৮০ মিলিগ্রাম, ভিটামিন সি-১৩ মিলিগ্রাম।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কদবেল কাঁঠাল, পেয়ারা, লিচু, আমলকি, আনারসের চেয়েও বেশি উপকারী। বিশেষজ্ঞদের দাবি, কদবেল কিডনি সুরক্ষিত রাখে। লিভার ও হার্টের জন্যও উপকারী। কদবেলের ট্যানিন দীর্ঘদিনের ডায়রিয়া ও পেট ব্যথা ভালো করে। কলেরা ও পাইলসের প্রতিষেধকও এটি। দীর্ঘদিনের কোষ্ঠ কাঠিন্য ও আমাশয় নিরাময়ে কদবেল উপকারী। পেপটিক আলসারেও এটি ভালো কাজ করে। ডায়াবেটিসে ভালো কাজ দেয় কদবেল। রক্ত পরিষ্কার করে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে ও রক্তস্বল্পতা দূর করে এবং শরীরে শক্তি বাড়ায়। সর্দি-কাশিতে কদবেলের জুড়ি মেলা ভার। এটি শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে, স্নায়ুর শক্তি বাড়ায়। ফুসফুসের চিকিৎসায় কদবেলের কার্যকরী ভূমিকা রয়েছে। মহিলাদের হরমোনের অভাব সংক্রান্ত সমস্যা কমায়। স্তন ও জরায়ু ক্যান্সার প্রতিরোধ করে কদবেল। কাঁচা কদবেলের রস মুখে মাখলে ব্রণ ও মেছতার সমস্যা কমে যায় বলেও চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস