ওয়ালটনের নতুন স্মার্টফোন ‘প্রিমো ইএমটু’

ওয়ালটনের নতুন স্মার্টফোন ‘প্রিমো ইএমটু’

দেশে তৈরি আরেকটি সাশ্রয়ী মূল্যের স্মার্টফোন বাজারে ছাড়লো প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। আকর্ষণীয় ডিজাইনের মেটাল বডির ফোনটির মডেল ‘প্রিমো ইএমটু’। ৪ হাজার ৫৯৯ টাকা মূল্যের হ্যান্ডসেটটি নীল এবং কালো দুটি ভিন্ন রঙে দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড এবং রিটেইল আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে।

ওয়ালটন সেল্যুলার ফোন বিক্রয় বিভাগের প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত এই স্মার্টফোনটি তৈরি হয়েছে গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন ডিজি-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের নিজস্ব কারখানায়।

ওয়ালটন সূত্রে জানা যায়, মেটালিক ডিজাইনের ‘প্রিমো ইএমটু’ মডেলের স্মার্টফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ৪.৯৫ ইঞ্চির ফুল ভিউ ডিসপ্লের এফডব্লিউভিজিএ প্লাস পর্দা। নতুন এই ফোনের উচ্চগতি নিশ্চিতে আছে ১.৩ গিগাহার্জের কোয়াডকোর প্রসেসর। রয়েছে ১ গিগাবাইট ডিডিআরথ্রি র‌্যাম। প্রাণবন্ত ভিডিও ও গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-টি৮২০। প্রয়োজনীয় ফাইল সংরক্ষণে রয়েছে ৮ গিগাবাইট স্টোরেজ। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

এই স্মার্টফোনের উভয় প্রান্তে রয়েছে বিএসআই সেন্সরযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে ডিজিটাল জুম, ফেস বিউটি, এআই ডিটেক্ট, কালার ইফেক্ট, টাচিং ফটোগ্রাফি, অডিও পিকচার, কিউআর কোড স্ক্যানার, টাইম ল্যাপস ইত্যাদি।

অ্যানড্রয়েড ৮.১ ওরিও (গো এডিশন) অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত স্মার্টফোনটির প্রয়োজনীয় পাওয়ার ব্যাক-আপের জন্য রয়েছে ২৯৩০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-পলিমার ব্যাটারি। থ্রিজি সাপোর্টেড ফোনটিতে একসঙ্গে ব্যবহার করা যাবে দুটি সিম। কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ল্যান হটস্পট, ওটিএ ও মাইক্রো ইউএসবি২ সুবিধা। সেন্সর হিসেবে রয়েছে জিপিএস, এ-জিপিএস এক্সিলারোমিটার (থ্রিডি) ইত্যাদি। মাল্টিমিডিয়া ফিচার হিসেবে আছে ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক ও রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও।

বাংলাদেশে তৈরি এই স্মার্টফোনে ক্রেতারা পাবেন বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা। স্মার্টফোন কেনার ৩০ দিনের মধ্যে ত্রুটি দেখা দিলে ফোনটি পাল্টে ক্রেতাকে নতুন আরেকটি ফোন দেয়া হবে। এছাড়াও, ১০১ দিনের মধ্যে প্রায়োরিটি বেসিসে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ক্রেতা বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন। তাছাড়া, স্মার্টফোনে এক বছরের এবং ব্যাটারি ও চার্জারে ছয় মাসের বিক্রয়োত্তর সেবা তো থাকছেই।

উল্লেখ্য, দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা এবং ব্র্যান্ড ও রিটেইল আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।

মানবকণ্ঠ/এসএস