ওয়াইএসএসই-এর চতুর্থ বর্ষপূর্তি উদযাপিত

ওয়াইএসএসই-এর চতুর্থ বর্ষপূর্তি উদযাপিত

সামাজিক উদ্যোক্তা বিষয়ক দেশের একমাত্র যুব সংগঠন ‘ইয়ুথ স্কুল ফর স্যোসাল এন্ট্রাপ্রেনার্স (ওয়াইএসএসই)’র চতুর্থ বর্ষপূর্তি পালিত হয়েছে। গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার পান্থপথে অবস্থিত এসইএল সেন্টারে বণার্ঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। ২০১৫ সালের পহেলা ফেব্রুয়ারি বর্তমান প্রেসিডেন্ট শেখ মোহাম্মদ ইউসুফের হাত ধরে অভিষেক ঘটেছিল ওয়াইএসএসই-এর। হাটি হাটি পা পা করে দেশের পার্বত্য এলাকাসহ সবকটি বিভাগে এমনকি দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিশ্বের ২৩টি দেশের কার্যক্রম পরিচালনা করছে ওয়াইএসএসই। গত চার বছর ধরে দেশের প্রতিয়মান বেকারত্ব ও নানা সামাজিক সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে যুব ও নারী সমাজের ক্ষমতায়নের জন্য সামাজিক উদ্যোক্তার সুবাস ছড়িয়ে দিতে প্রতিনিয়ত ফলপ্রসু কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে সংগঠনটি। অর্থায়ন, পরামর্শ, প্রশিক্ষণ ও নেটওয়ার্কিংসহ আরো নানাবিধ উদ্যোক্তা সংক্রান্ত সহযোগিতা প্রদান করে ওয়াইএসএসই।

প্রথম বর্ষ ছিল সামাজিক উদ্যোক্তামূলক সচেতনা সৃষ্টির বছর। এর পরের বছর ছিল কার্যক্রম বিকেন্দ্রীকরণের বর্ষ, ক্রমানুযায়ী তৃতীয় বর্ষ ছিল সম্পৃক্তা বৃদ্ধি ও নেটওয়াকিং এর বর্ষ। আর বিগত বছরটি ছিল উদ্যোক্তা স্বীকৃতি, সামাজিকীকরণ ও দক্ষতা উন্নয়নের বর্ষ। দেশে ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে ওঠে অসংখ্য ভুইফোঁড় সংগঠনের মাঝে ওয়াইএসএসই তাদের কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছে ও সমাজে একটা প্রভাব সৃষ্টিতে সক্ষম হয়েছে। যার ফলাফলই হচ্ছে এই চতুর্থ বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান। এভাবেই সংগঠনের চার বছরকে মূল্যায়ন করেছেন সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি শেখ মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন। দুপুর থেকেই অনুষ্ঠান প্রাঙ্গনে আগমন ঘটতে থাকে সংগঠনটির সাধারণ সদস্য, প্রতিনিধি, কার্যনির্বাহী ও পরিচালনা পরিষদের সদস্য ও সকল পর্যায়েল শুভানুধ্যায়ীদের। বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- রোর বাংলা এডিটর ইন চিফ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, ইগলু আইসক্রিমের হেড অব মার্কেটিং সুরাইয়া সিদ্দিকা, ইন্টেরিয়র স্টুডিও এর প্রতিষ্ঠাতা মারুফ লিয়াকত, হিউম্যানিটি ফর পিপলছ এর চিফ কমিউনিকেশন অফিসার জিয়াউদ্দিন আহমেদ, সিএনআই এর হেড অব নিউজ মো. জুয়েল আহমেদ এবং ষ্টার্ট আপ বাংলাদেশ এর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কমিউনিকেশন এর ব্যবস্থাপক আদনান মো. দেওয়ান এবং নিরাপদ ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশন ও ওয়াইএসএসই-এর চেয়্যারম্যান ইবনুল সায়িদ রানা। তারা ওয়াইএসএসই-এর প্রতি ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়ে নিজেদের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন ও ওয়াইএসএসই-এর উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন। শুভেচ্ছা বিনিময় ও কেক কাটার মাধ্যমে দিবসটিকে উদযাপন করে ওয়াইএসএসই।

বিগত চার বরে সফলতার সঙ্গে ওয়াইএসএসই পালন করেছে দেড়শটিরও বেশি কর্মসূচি। যার মধ্যে অন্যতম স্যোসাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ সামিট, নেক্সট জেনারেশন কার্নিভাল, বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম, ইয়ুথ পলিসি ডায়লগ, রেজোন্যান্স, শেপ ইউর ক্যারিয়ার, বিহাইন্ড দ্যা জার্নি। ওয়াইএসএসই-এর কর্মসূচি ও পদক্ষেপের ফলে প্রায় ৩২ হাজারেরও অধিক মানুষ উপকৃত হন। শুধুমাত্র গেলো বছরেই প্রায় ৫০০ জনেরও বেশি ওয়াইএসএসই সদস্যদের জন্য ‘ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রোগ্রাম’র আওয়তায় দক্ষতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করা হয়। অন্যদিকে ৬ হাজারেরও অধিক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদেরকে উদ্যোক্তা সচেতন ও উদ্যোক্তা হতে উদ্বুদ্ভ করা হয় ‘বাংলাদেশ ইয়ুথ সিম্পোজিয়াম’র মাধ্যমে। এছাড়াও ‘স্যোসাল এন্ট্রাপ্রেনারশিপ সামিট’র প্লাটফর্মেই ১৫ জন উদ্যোক্তার সূচনা হয়। কূটনীতিবিদ, রাজনীতিবিদ, সফল ও উদীয়মান উদ্যোক্তাগণের মধ্যে একটি সুন্দর যোগাযোগের প্লাটফর্ম তৈরি করতে সক্ষম হয় ওয়াইএসএসই ‘ইয়ুথ পলিসি ডায়লগ’র মাধ্যমে। এভাবেই স্বাগত বক্তব্যে ওয়াইএসএসই এর বর্ণাঢ্যমায় ৪ বছরের সফলতাগুলোকে তুলে ধরেছেন প্রতিষ্ঠানটির সাধারণ সম্পাদক মো. সাহেদ হোসেন।

সামনের দিনগুলোকে উদ্যোক্তাময় হিসেবে রাঙ্গাতে ওয়াইএসএসই তাদের নেটওয়ার্কের কলেবর আরো বাড়াতে ও উদ্যোক্তাদেরকে আরো সামনে এগিয়ে নিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। বিগত চার বছরে ওয়াইএসএসই-এর এই সফলতা পেছনে আন্তরিকভাবে মেধা, শ্রম ও সময় দিয়ে পাশে ছিলে পরিষদ সদস্যগণ, উপদেষ্টাগণ, পরামর্শকগণ, যুব প্রতিনিধি, প্রশিক্ষণার্থী স্বেচ্ছাসেবী, সদস্য ও অসংখ্য শুভাকাঙ্খী। সকলকে পাশেই নিয়ে ওয়াইএসএসই সামনের দিনগুলোকে আরো উদ্যোক্তা বান্ধব ও সাফল্যমণ্ডিত করতে চায়।

মানবকণ্ঠ/এসএস