এবার কুমিল্লায় বাসে প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা

এবার কুমিল্লায় বাসে প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা
টাঙ্গাইলে বাসের ভেতরে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের রেশ কাটতে না কাটতেই এবার কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাসে মানসিক প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেছে বাস চালক ও হেলপার। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা শিশুটিকে উদ্ধার করে এবং চালক ও হেলপারকে গণধোলায় দিয়ে পুলিশে হস্তান্তর করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি সড়ক চত্বরে যাত্রীসেবা পরিবহনের নামে একটি বাসে ভিতর ঘটনাটি ঘটেছে।

আটক যাত্রীসেবা পরিবহনের চালক মোহাম্মদ সেলিমের (৬০) বাড়ি নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ উপজেলার আমানতপুর গ্রামে এবং হেলপার আবু জাফরের (৩৫) বাড়ি বরিশাল জেলায়।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাজারুল জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে আমরা কয়েকজন বন্ধু বিশ্ববিদ্যালয় বাস থেকে কোটবাড়ি রাস্তার মুখে নেমে সেনানিবাস যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করেছিলাম। তখন মহাসড়কের পাশে থেমে থাকা একটি বাস থেকে শিশুর কান্নার শব্দ শুনতে পাই। তারপর বাসে উঠে দেখি ৭ বছর বয়সী মেয়েটির দুই হাত বেধে রেখেছে। তাকে ঘিরে রেখেছে চালক ও দুই হেলপার। এসময় আমরা তাদের গণধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছি। গণধোলাই দেয়ার সময় একজন হেলপার কৌশলে পালিয়ে গেছে।

সদর দক্ষিণ থানার পরিদর্শক তদন্ত কমল কৃষ্ণ ধর (তদন্ত) বলেন, প্রথমে মেয়েটির পরিচয় পাওয়া যায়নি। প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি মেয়েটির বাড়ি হবিগঞ্জ জেলায়। তার পিতা-মাতা কুমিল্লায় আসছেন। তবে এ ঘটনায় চালক ও হেলপারকে আটক ও বাসটি জব্দ করা হয়েছে। শিশুটি কুমিল্লা শিশু পরিবারে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। শিশুটির মা-বাবা আসলে জানতে পারবো শিশুটি হবিগঞ্জ থেকে কিভাবে কুমিল্লায় আসলো।

সদর দক্ষিণ থানার ওসি মামুনুর রশিদ বলেন, প্রাথমিক ভাবে জানতে পেরেছি শিশুটির বাড়ি হবিগঞ্জ জেলায়। শিশুকে দেখতে মানসিক প্রতিবন্ধী মনে হচ্ছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। শিশুর পরিবার মামলা না করলেও পুলিশ বাদী হয়ে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবে।

মানবকণ্ঠ/এসএ

Leave a Reply

Your email address will not be published.