উপন্যাসে ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার-২০১৮’ পেলেন শিরীণ আখতার

উপন্যাসে ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’ পেলেন কথাসাহিত্যিক ও গবেষক শিরীণ আখতার। সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থা দেশ পাবলিকেশন্স ৫ম বারের মতো এবার ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’ প্রদান করার লক্ষ্যে গত মাসে পাণ্ডুলিপি আহ্বান করেন। চলতি মাসের ১০ তারিখ পর্যন্ত মোট ১৭১ টি পাণ্ডুলিপি জমা পড়ে। এর মধ্য থেকে জুরিবোর্ডের প্রাথমিক নির্বাচনের ভিত্তিতে সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়। এর মধ্য থেকে উপন্যাসে শ্রেষ্ঠ ১ জনের নাম ঘোষণা করা হয়।

শিরীণ আখতার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর, অধ্যাপক পবিত্র সরকারের তত্ত্বাবধানে উচ্চতর গবেষণা করেছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, ভারতে। পেশায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অধ্যাপক। বর্তমানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য পদে দায়িত্বরত। প্রকাশিত গ্রন্থসংখ্যা দশের অধিক। গবেষণায় বিশেষ অবদানের জন্য পেয়েছেন দীনেশচন্দ্র সেন সম্মাননা, এছাড়া দেশ-বিদেশের একাধিক পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন। রোহিঙ্গা শরণার্থী নিয়ে প্রায় দুই বছর যাবৎ কাজ করছিলেন, রোহিঙ্গা তার ইতিহাসর নির্ভর ডকুফিকশন।

এ বিষয়ে দেশ পাবলিকেশন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অচিন্ত্য চয়ন জানান, ‘চেতনায় ঐতিহ্য’ এ স্লোগানকে ধারণ করে সুনামের সঙ্গেই ৫ম বছরের পুরস্কার ঘোষণা শুরু হলো। কথাসাহিত্যে ধারাবাহিকভাবে ২ দিন পরপর শ্রেষ্ঠদের নাম ঘোষণা করা হবে। এবারও মানসম্মত পাণ্ডুলিপিকে পুরস্কৃত করার চেষ্টা করছি। এ বছর তরুণরা বেশ এগিয়ে আছে। আশা করছি চূড়ান্ত তালিকায় তরুণদের নাম বেশি আসবে। প্রথমবারের মতো গণমাধ্যমে পুরস্কার প্রদান এবং পুরস্কার হিসাবে ক্রেস্ট ও সম্মাননা সনদের সঙ্গে প্রথমবারের মতো নগদ অর্থমূল্য প্রদান করা হবে। মনোনীত পাণ্ডুলিপি একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৯ এ গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করা হবে। এবার উপন্যাসে ‘দেশ পাণ্ডুলিপি পুরস্কার ২০১৮’ কথাসাহিত্যিক ও গবেষক শিরীণ আখতারকে দিতে পারায় গর্ববোধ করছি। আশা করছি, ‘রোহিঙ্গা’ উপন্যাসটি পাঠকপ্রিয়তা পাবে।

মানবকণ্ঠ/এফএইচ