উন্নয়ের বার্তা জনগণের মধ্যে পৌঁছে দিতেই এই পথসভা: কাদের

দলীয় নেতাকর্মীরা নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসন করে ঐকবদ্ধ থাকার নির্দেশনার পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ের বার্তা জনগণের মধ্যে পৌঁছে দিতেই আওয়ামী লীগ এই পথসভা করছে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে এ সফর শুরুর পর তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডয়াম সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম, মহিবুল হাসান চৌধুরী, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেনসহ কেন্দ্রীয় নেতারা সফরসঙ্গী হিসেবে আছেন।

কাদের বলেন, সরকারের উন্নয়নের বার্তা তৃণমূলে পৌঁছাতে বিমান ও ট্রেন যাত্রার পর এখন আমরা সড়ক পথে চট্রগ্রাম কক্সবাজার যাচ্ছি। যাত্রা পথে প্রথমে কুমিল্লায় পথসভা করব, পরে চৌদ্দগ্রাম, ফেনীতে পথসভা করে রাতে চট্রগ্রামে পৌঁছাব। আগামীকাল সকাল ৯টায় চট্রগ্রাম থেকে কক্সবাজার যাওয়ার পথে কর্ণফুলী, লোহাগড়া, চকরিয়া ও কক্সবাজার ঈদগা মাঠে পথসভা করব।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার বিপুল উন্নয়ন করেছে, আমাদের নেত্রী দেশের জনগণের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এই উন্নয়নের বার্তা মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে যাচ্ছি। এছাড়া দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থাকার কথা বলব, কোন্দল মিটিয়ে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত থাকার জন্য উদ্বুদ্ধ করব।

সেতুমন্ত্রী বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বাধা নেই। তবে সহিংসতা করলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যাত্রাপথে আওয়ামী লীগের সফরকারী দলটি কুমিল্লার ইলিয়টগঞ্জ, টাউনহল মাঠ, চৌদ্দগ্রাম, ফেনী ও সীতাকুণ্ড এলাকায় সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করবে। পরদিন রোববার চট্টগ্রাম জেলার কর্ণফুলী থানা, লোহাগাড়া উপজেলা, কক্সবাজারের চকরিয়ায় বাসস্ট্যান্ড ও রামু ঈদগাহ মাঠে বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করবে।

এর আগে ৩০ ও ৩১ আগস্ট সিলেট সফরের মধ্যদিয়ে নির্বাচনী সফর শুরু করেন ওবায়দুল কাদের। পরে ৮ সেপ্টেম্বর রেলপথে সাংগঠনিক সফর করে আওয়ামী লীগ। নীলসাগর ট্রেনে করে নীলফামারীর উদ্দেশে যাওয়ার পথে টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, নাটোর, বগুড়া, জয়পুরহাট, দিনাজপুর ও নীলফামারী জেলার অন্তর্ভুক্ত রেলস্টেশনগুলোতে পথসভা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক।

মানবকণ্ঠ/এএএম