উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য আদালতে খালেদা জিয়ার মায়া কান্না: কাদের

ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া আদালতে গিয়ে সহানুভূতি আদায় ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য মায়া কান্না করছেন। আদালতে তিনি আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনা সম্পর্কে যে নিলজ্জ্ব মিথ্যাচার করছেন তা রাজনৈতিক ভাষা নয়, এটা রাস্তার ভাষা।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার সোন্দলপুর ইউনিয়নে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল করিম চৌধুরী এমপির বাড়িতে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলে।

কাদের বলেন, বাংলাদেশের শত শত মানুষকে তিনি পুড়িয়ে মেরেছেন। শত শত মানুষের কান্নার রোল এখনো বাংলার আকাশে ভেসে আসছে। আদালতে গিয়ে কান্নাকাটি করে জনগণের কাছে মায়া কান্না দেখিয়ে তথাকথিত সহানুভূতি অর্জনের চেষ্টা করছেন। পুত্রহারা মাকে সান্তনা দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে নিষ্ঠুর আচরণের মুখোমুখি হয়েছেন, তা বিশ্বের কোনো সভ্যতার মধ্যে পড়ে না।

কাদের আরো বলেন, ওয়ান ইলেভেনের সময় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অসম্মানজনক ও অপমানজনক ভাবে আদালতে নেয়া হয়েছে। অথচ সেই সময়ের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধাসহ বাড়ি বরাদ্দ করে সাব-জেল তৈরি করে সেখানে নেয়া হয়। অথচ খালেদা জিয়া আদালতে বলেন, শেখ হাসিনা লাকি, তাকে কখনো আদালতে যেতে হয়নি।

বিএনপিকে তিনি বলেন, ত্রাণ দিতে গিয়ে ত্রাণ সরবরাহের পথ রুদ্ধ করবেন না। ত্রাণ সরবরাহ করা না গেলে ৬ লাখ মানুষ কষ্ট পাবে। ত্রাণ দেয়ার নামে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এবং চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার মহাসড়কে যাওয়া-আসার সময় রাস্তায় সভা করে রাজনৈতিক অঙ্গনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবেন না। ত্রাণের নাম করে তিন দিন ঢাকা-চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক অচল করে রাখলে ত্রাণ সরবরাহের পথ বন্ধ হয়ে যাবে। বিষয়টি মানবিক হলেও তাদের উদ্দেশ্য রাজনৈতিক।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করিম চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মাহবুবুল আলম তালুকদার ও পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ, কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন রুমি, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র জহিরুল হক রায়হান প্রমুখ।

বিকেলে মন্ত্রী একই স্থানে উপজেলা আওয়ামী মহিলা সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন।

মানবকণ্ঠ/এমএসএস/এসএস