ইয়াং বাংলা ও আইসিটি বিভাগের ‘আইডিয়া’ প্রজেক্ট নিয়ে এলো ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’

দেশ গঠনে তরুণদের ভিন্ন উদ্যোগ ও স্টার্ট আপকে স্বাগত জানাতে আইসিটি বিভাগের ‘ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্ট্রাপ্রেনারশিপ একাডেমি’ (আইডিয়া) প্রজেক্ট এবং তারুণ্যের সর্ববৃহৎ প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা নিয়ে এসেছে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’।

সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) অঙ্গ সংগঠন ইয়াং বাংলার সাথে ২০১৮ সালের ১৫ মার্চ স্টার্ট আপের পতাকা নিয়ে এগিয়ে চলা আইসিটি বিভাগের আইডিয়া প্রজেক্ট চুক্তিবদ্ধ হয়। দেশের সর্ববৃহৎ তরুণদের প্লাটফর্মের সাথে হওয়া চুক্তির আলোকে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে চলতি বছর মার্চে।

প্রথমবারের মত হতে যাওয়া এই আয়োজন প্রসঙ্গে সিআরআই কো-অর্ডিনেটর তন্ময় আহমেদ বলেন, তরুণদের সর্ববৃহৎ প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা সর্বদা তরুণদের দেশ গঠনে উদ্যমী ও কর্মক্ষম করে গড়ে তুলতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। তেমনি এক উদ্যোগ ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ’। এবার বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে চলমান বিভিন্ন সমস্যার প্রাতিষ্ঠানিক সমাধানের বিষয়ে পরিকল্পনা সংগ্রহ করব আমরা। সেই সঙ্গে এই শিক্ষার্থীদের প্রতিষ্ঠান পরিচালনা, চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা এবং ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার বিষয়ে খুঁটিনাটি ধারণাগুলো নিয়ে কাজ করা হবে। সারা দেশে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় থেকে বাছাই করা ১০টি দল শেষ পর্যন্ত নিজেদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অর্থ ও পরামর্শ সহায়তা পাবে আইডিয়া প্রজেক্ট থেকে। সেই সঙ্গে তাদের ব্যবহারের জন্য ইয়াং বাংলার প্লাটফর্ম ত থাকছেই।

আইডিয়া প্রজেক্ট ডাইরেক্টর সৈয়দ মজিবুল হক জানান, আইডিয়া প্রজেক্টের মূল কাজ দেশ গঠনে উদ্যোগী তরুণদের সহায়তা করা। তাদের উদ্যোগগুলোর জন্য পরামর্শ সেবা, অর্থ সেবা, অফিস সেবার ব্যবস্থা সহ সহায়তা করা। কোন তরুণের দুর্দান্ত একটি স্টার্ট আপ যেন সহায়তার অভাবে ধ্বংস না হয়। তরুণ উদ্যোক্তারা যেন নিজেদের উদ্যোগ বাস্তবায়নে সাহস পায় এবং তাদের এই উদ্যোগের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে যেন আমরা এগিয়ে যেতে পারি তা নিশ্চিত করা আমাদের দায়িত্ব। আর সেই দায়িত্বের স্থান থেকেই আমাদের ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’ শুরু।

দেশের আট বিভাগ থেকে ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়কে কেন্দ্র করে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’-এর কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছাড়াও অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রতিযোগিতার জন্য আবেদন করতে পারবেন। ক্যাম্পাস লেভেলে ইয়াং বাংলার ক্যাম্পাস অ্যাম্বাসেডরদের সহায়তায় পরিচালিত হবে প্রতিযোগিতা। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতা থেকে বাছাই করা হবে ৩টি করে দলকে। এই ১২০ দল নিয়ে মূল ক্যাম্প প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে সাভারে। সেখান থেকে দর্শক ভোট এবং বিচারকদের ভোটে বাছাই করা হবে মূল প্রতিযোগিতার ৩০ স্টার্টআপ। সর্বশেষ ১০ স্টাটআপ জাতীয় পর্যায়ে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হবে। ৮ মার্চ ২০১৯ তারিখে প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে শুরু হবে ‘স্টুডেন্ট টু স্টার্টআপ: চেপ্টার ওয়ান’-এর কার্যক্রম।

মানবকণ্ঠ/এএম