ইমরুলের সেঞ্চুরিতে জিম্বাবুয়েকে ২৭২ রানের টার্গেট

দীর্ঘদিন পর ওপেনিং পজিশনে ফিরে এসে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি উপহার দিলেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার ইমরুল কায়েস। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে যখন একপাশে লিটন, ফজলে রাব্বি, মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ কিংবা মোহাম্মদ মিঠুনরা মাঠ ছাড়ছিল, তখন অন্যপাশে নিজেকে শক্ত করে রেখেছেন ইমরুল। শুধু শক্ত করে নয় গড়েছেন রানের পাহাড়ও।

তাকে যোগ্য সঙ্গ দিলেন তরুণ পেস অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। সাইফউদ্দিন করেছেন হাফ সেঞ্চুরি। রবিবার মিরপুরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৭১ রান সংগ্রহ করেছে টাইগাররা।

টাইগার ওপেনার ইমরুল কায়েস ১৪০ বলের বিপরীতে সংগ্রহ করেছেন ১৪৪ রান। ১৩টি চার ও  ছয়টি ছক্কার বিনিময়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে ইমরুল কায়েসের এটি সর্বোচ্চ রানের ইনিংস।

ইমরুল কায়েস ছাড়া অন্যদের মধ্যে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৫০ ও মোহাম্মদ মিথুন ৩৭ রান করেন। ওয়ানডেতে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের এটি প্রথম অর্ধশত। জিম্বাবুয়ের পক্ষে কাইল জারভিস ৪টি, টেন্ডাই সাতারা ৩টি ও ব্রান্ডন মাভুতা ১টি করে উইকেট সংগ্রহ করেন।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ম্যাচ শুরু হতে না হতেই দুই উইকেট পড়ে যায় বাংলাদেশের। ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে টেন্ডাই সাতারার বলে চেফাস ঝুওয়াও এর হাতে ধরা পড়েন লিটন দাস। ১৪ বল খেলে চার রান করেন তিনি। বলটি মিড-অফের উপর দিয়ে বের করে দিতে চেয়েছিলেন লিটন। কিন্তু ঝুওয়াও তার বাঁ-দিকে সরে গিয়ে ধরে ফেলেন বলটি।

এই ওভারের শেষ বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা রাব্বী। চার বল খেলে শূন্য রান করেন তিনি। দুই উইকেট পড়ে যাওয়ার পর ৪৯ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ইমরুল কায়েস ও মুশফিকুর রহিম। জুটি ৪৯ রানের হলেও মুশফিকুর রহিম ব্যক্তিগত ১৫ রানে সাজঘরে ফিরে যান। ইনিংসের ১৫তম ওভারে ব্রান্ডন মাভুতার বলে উইকেটরক্ষক ব্রেন্ডন টেইললের হাতে ক্যাচ হন তিনি।

এরপর ৭১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ইমরুল কায়েস ও মোহাম্মদ মিথুন। একের পর এক চার ছক্কার বিনিময়ে দলের রানটা দ্রুত এগিয়ে নিচ্ছিলেন।  কিন্তু দলীয় ১৩৭ রানে স্থির হয়ে যান তারা।

কাইল জারভিসের করা ২৮তম ওভারের দ্বিতীয় বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন মোহাম্মদ মিথুন। তিনি করেন ৩৭ রান। এরপর ওভারের শেষ বলে উইকেটরক্ষকের হাতে আউট হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। এরপর ৩০তম ওভারে কাইল জারভিসের বলে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ দিয়ে মাঠের বাইরে চলে যান মেহেদী হাসান মিরাজ।

এরপর সপ্তম উইকেট জুটিতে ১২৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ইমরুল কায়েস ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ওয়ানডেতে সপ্তম উইকেট জুটিতে কায়েস-সাইফউদ্দিনের এই জুটিই এখন সেরা।

এদিকে শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার কারণে মাঠের বাইরে রয়েছেন পেসার রুবেল হোসেন। একাদশে তিনজন পেসার ও দুইজন স্পিনার রাখা হয়েছে। অন্যদিকে একাদশে ফিরেছেন পেস অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ইনিংস: ২৭১/৮ (৫০ ওভার)

(লিটন দাস ৪, ইমরুল কায়েস ১৪৪, ফজলে মাহমুদ রাব্বী ০, মুশফিকুর রহিম ১৫, মোহাম্মদ মিথুন ৩৭, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ০, মেহেদী হাসান মিরাজ ১, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ৫০, মাশরাফি বিন মুর্তজা ২*, মোস্তাফিজুর রহমান ১*; কাইল জারভিস ৪/৩৭, টেন্ডাই সাতারা ৩/৫৫, ডোনাল্ড তিরিপানো ০/৬০, ব্রান্ডন মাভুতা ১/৪৮, সিকান্দার রাজা ০/৩৭, শন উইলিয়ামস ০/৩২)।

মানবকণ্ঠ/এম