আমাদের বকর ভাই

আমাদের বকর ভাই

বকর ভাইয়ের সঙ্গে আমার প্রথম পরিচয় ২০০১ সালে দৈনিক আজকের কাগজে। সে সময় আমি আজকের কাগজে প্রদায়ক হিসেবে কাজ করি। ধানমণ্ডিস্থ আজকের কাগজ অফিসের সামনে আখতারের দোকানে চা খেতে গেলে মাঝে মধ্যে বকর ভাইয়ের সঙ্গ পেতাম। কোথায় পড়ছি, কি লিখছি এই সব টুকটাক কথা হতো। এরপর দীর্ঘ দিনই বলা যায় বকর ভাইয়ের সঙ্গে দেখা হয়নি। তবে বকর ভাই সমকালে যোগ দিলে তখন মাসে একবার হলেও দেখা হতো। কারণ যায়যায়দিনে কাজ করার সুবাদে সমকালে প্রায়ই যাওয়া হতো। আর এই অনিয়মিত দেখাটাই নিয়মিত হলো মানবকণ্ঠে এসে।

মানবকণ্ঠ প্রকাশের শুরুর দিন থেকেই বকর ভাই আমাদের সঙ্গে ছিলেন। শুরুতে তিনি এই পত্রিকায় নিউজ এডিটর হিসেবে কাজ শুরু করলেও সর্বশেষ তিনি ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে কাজ করেছেন। বকর ছিলেন জীবন্ত আর্কাইভ। কোনো তথ্য বা ইনফরমেশন খুব নিখুঁতভাবে মনে রাখতে পারতেন তিনি। এমনকি কোনো নিউজ নিয়ে কনফিউশন তৈরি হলে আমাদের সর্বশেষ আশ্রয় ছিল বকর ভাই। সার্বক্ষণিক নিউজম্যান হিসেবে যদি কাউকে বোঝায় তবে তিনি হলেন বকর ভাই। সদা হাস্যেজ্জ্বল ও তারুণ্যের প্রতীক বকর ভাই আর নেই এটা মেনে নেয়া খৃুবই কষ্টের। পুরো নিউজ রুমকে এক হাতে বিপদে আপদে আগলে রেখেছেন তিনি। তার অপূর্ণতা প্রতি পদে পদে মানবকণ্ঠ অনুভব করবে।

মানবকণ্ঠ/এসএস