আমজাদ হোসেনের মরদেহ দেশে আনা হবে সোমবার

কিংবদন্তি চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন আমজাদ হোসেনের মরদেহ সোমবার দেশে আনা হবে। তার বড় ছেলে সাজ্জাদ হোসেন দোদুল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শুক্রবার থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে আমজাদ হোসেন মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।

বড় ছেলে সাজ্জাদ হোসেন বলেন, এখানকার কিছু কাগজপত্রের ক্লিয়ারেন্সের জন্য একটু সময় লাগছে। এছাড়া ব্যাংককে রোববার সরকারি ছুটি থাকার কারণে কাজ সম্পন্ন করতে একটু অসুবিধাও হয়েছে। তাই আগামীকাল সোমবার সকালে এখানে সব কাজ শেষ করে দ্রুত ব্যাংকক থেকে বাবার মরদেহ দেশে আনার প্রস্তুতি নেয়া হবে।

ঢাকায় মোহাম্মদপুরের আদাবরের বাসার কাছে প্রথম জানাজা হবে। পরে মরদেহ রাখা হবে বারডেম হাসপাতালে। সেখান থেকে মঙ্গলবার এফডিসি ও শহীদ মিনারে নেয়া হবে। এছাড়াও আমজাদ হোসেনের জন্মস্থান জামালপুরে আরেকটি জানাজা শেষে তার স্ত্রীর ইচ্ছে অনুযায়ী ঢাকার মিরপুরের বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

১৯৭৮ সালে ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ এবং ১৯৮৪ সালে ‘ভাত দে’ চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান আমজাদ হোসেন। এছাড়া জাতীয়ভাবে তিনি অসংখ্য পুরস্কার পেয়েছেন। ‘বাল্যবন্ধু’, ‘পিতাপুত্র’, ‘এই নিয়ে পৃথিবী’, ‘বাংলার মুখ’, ‘নয়নমণি’, ‘সুন্দরী’, ‘কসাই’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’, ‘দুই পয়সার আলতা’, ‘সখিনার যুদ্ধ’, ‘হীরামতি’, ‘প্রাণের মানুষ’, ‘সুন্দরী বধূ’, ‘কাল সকালে’, ‘গোলাপী এখন ঢাকায়’, ‘গোলাপী এখন বিলেতে’র মতো দর্শকনন্দিত চলচ্চিত্র উপহার দিয়েছেন তিনি।

মানবকণ্ঠ/এএম