আবারো বড় ধাক্কা খেয়েছে জামায়াত

যুদ্ধাপরাধের দায়ে অভিযুক্ত দল জামায়াতে ইসলামীর নেতারা আবারো বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছেন। ফলে বিগত দিনে নানা রকমের চাপে থাকলেও সোমবার নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) দলটির আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনোরেল ডা. শফিকুর রহমানসহ ৯ শীর্ষস্থানীয় নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর থেকেই দলটি এক রকম নেতৃত্বশূন্য হয়ে পড়েছে। পার্টির শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদ জানিয়ে দলের নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান গতকাল মঙ্গলবার বিক্ষোভ কর্মসূচি ডাকলেও দেশের কোথাও প্রকাশ্যে রাজপথে নামতে দেখা যায়নি দলীয় নেতাকর্মীদের। মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানকে গ্রেফতারের পর পুরো একদিন অভিভাবক শূন্য হয়ে যায় দলটি। গতকাল দলীয় নেতাকর্মীদের হতাশ হতে দেখা যায়। আমির ও সেক্রেটারি পদে কে কে দায়িত্ব পাচ্ছেন তা নিয়ে চিন্তায় ছিলেন তারা।

এদিকে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গতকাল সন্ধ্যায় দলের কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগের এম আলমের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সংগঠনের গঠনতন্ত্র মোতাবেক নায়েবে আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমানকে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত আমির ও সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এটিএম মাসুমকে ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল নিযুক্ত করা হয়েছে বলে জানানো হয়।

অপরদিকে শীর্ষ নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে দলটি মঙ্গলবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা দিলেও মাঠে নামতে দেখা যায়নি কাউকে। এমনটি মানবকণ্ঠকে জানিয়েছেন জামায়াতের ঢাকা মহানগরের কয়েক ওয়ার্ডের দায়িত্বশীল নেতারা। তারা বলেন, কোথাও কোনো একটি বিক্ষোভ মিছিল পর্যন্ত বের হয়নি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা আরো বলেন, কোনো দায়িত্বশীল নেতাই আমাদের সঠিক কোনো বার্তা দিচ্ছেন না। তা ছাড়া শীর্ষ নেতাদের কোথায় নেয়া হচ্ছে এ ব্যাপারে আমাদের অবগত করা হচ্ছে না।

এদিকে ফের চাপের মুখে পড়লো মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলামী। গোলাম আযম, মতিউর রহমান নিজামী ও আলী আহসান মুজাহিদের ধারাবাহিকতায় প্রায় সাত বছর পর একসঙ্গে আটক হলেন দলটির আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ ৬ শীর্ষ নেতা। এর আগে ২৯ সেপ্টেম্বর দলটির আরো কয়েক নেতাকে আটক করে পুলিশ। এর মধ্য দিয়ে মাত্র ১০ দিনে জামায়াতের প্রথম সারির প্রায় সব নেতাকেই আটক করা হলো। এতে দ্বিতীয় দফায় নেতৃত্বের সংকটের মুখে পড়লো জামায়াত। এই ঘটনায় নতুন চিন্তা যুক্ত হলো দলে।

জামায়াতের নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, শীর্ষ নেতাদের একসঙ্গে আটকের পেছনে সরকারের অন্য কোনো উদ্দেশ্য থাকলেও এ পরিকল্পনা সফল হয়েছে ভিন্ন কারণে। সোমবার রাতে উত্তরার একটি বাসায় আগামী নির্বাচনে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া থেকে দলীয় মনোনয়ন কে পাবেন, এ নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী কেন্দ্রীয় নেতারা ওই বাসায় একসঙ্গে হলেও বেঁচে গেছেন দুই নেতা। যাদের কেন্দ্র করে বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সূত্র জানায়, সাতকানিয়া আসন থেকে এমপি হয়েছেন শাহজাহান চৌধুরী ও নায়েবে আমির আ ন ম শামসুল ইসলাম দুজনই। কিন্তু আগামী নির্বাচনে কে প্রার্থী হবেন, এ নিয়ে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ও মহানগর নেতাদের মধ্যে মতবিরোধ ছিল। এই মতবিরোধ মেটাতেই দলের আমির মকবুল আহমাদ ও সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান ও মিয়া গোলাম পরওয়ার চট্টগ্রামের শীর্ষ নেতাদের ডেকেছিলেন। এই ডাকে সাড়া দিয়ে চট্টগ্রামে তিন নেতা বৈঠকস্থলে পৌঁছলেও শাহজাহান চৌধুরী ও শামসুল ইসলাম দেরি করে ফেলেন। এরই মধ্যে গোয়েন্দারা তাদের অবস্থান চিহ্নিত করেন। সরকারের প্রভাবশালী দুটি গোয়েন্দাসংস্থার নিভর্রযোগ্য সূত্র জানায়, বিগত এক মাসের বেশি সময় ধরেই জামায়াত নেতাদের গ্রেফতারে তৎপরতা শুরু হয়। কিন্তু এক সঙ্গে এতজন কেন্দ্রীয় নেতাদের পেয়ে যাবেন, এটি তারা ভাবেননি।

সারাদেশে হরতাল কাল: দলীয় আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ ৯ জনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সারাদেশে হরতাল ডেকেছে জামায়াত। সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালনের আহ্বান জানিয়ে দলের নতুন ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান গতকাল মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মুজিবুর রহমান জানান, আগামীকাল সারাদেশে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ এবং গ্রেফতারকৃত নেতাদের মুক্তির জন্য আগামী শুক্রবার দেশব্যাপী দোয়া দিবস হিসেবে পালিত হবে।

মানবকণ্ঠ/এসএস

One Response to "আবারো বড় ধাক্কা খেয়েছে জামায়াত"

  1. khairul   13/10/2017 at 2:28 AM

    Likley sangbadik howa hay na r tar upor jonmando nastik r noukar jatri hole tho bibek hin manus a beapare dimot nei.

    Jaammat o shibirer leader songkot keamot purbo Hobe na a beapare nisshit thako.

    Gaja kuri songbad lika teke biroto thako Jodi soti narir gorbe jonmo neo.

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published.