আফ্রিদি ঝড়ে কুমিল্লার জয়


ম্যাচটা হতে পারতো স্টিভেন স্মিথ কিংবা ডেভিড ওয়ার্নারের। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নিষেধাজ্ঞার খাড়ায় পড়া এই দুই তারকা ব্যাটসম্যানকে ছাপিয়ে ম্যাচের সব আলো কেড়ে নিলেন সাবেক পাকিস্তানী অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদি। ব্যাট হাতে রান পেয়েছেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবালও। এই দুজনের ব্যাটে চড়েই চলতি আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সকে ৪ উইকেটে হারিয়েছেন তামিম-স্মিথরা।

বিশ্ব ক্রিকেটের দুই মহাতারকা একে অন্যের প্রতিপক্ষ হয়ে মাঠে নামছেন, তাই এই ম্যাচকে ঘিরে একটা বাড়তি আগ্রহ ছিল দর্শকদের। কিন্তু বিপিএলে নিজেদের অভিষেক ম্যাচে ব্যাট হাতে তেমন কিছুই করে দেখাতে পারেননি সাবেক অজি অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও তারই সাবেক ডেপুটি ডেভিড ওয়ার্নার। কুমিল্লার অধিনায়ক স্মিথ আউট হয়েছেন ১৬ রানে আর ওয়ার্নার বিদায় নিয়েছেন মাত্র ১৪ রানে। তবে অধিনায়ক স্মিথের শুরুটা ভালোই হলো। বিপিএলে নিজের অভিষেক ম্যাচে অধিনায়ক হিসেবে জয়ের স্বাদ পেলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান।

সিলেটের ছুড়ে দেওয়া ১২৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দলীয় ১৬ রানেই ওপেনার এভিন লুইসের (৫) উইকেট হারায় কুমিল্লা। পেসার আল-আমিনের বলে আফিফ হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন এই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান। দলকে বিপদে ফেলে কিছুক্ষণ পর বিদায় নেন ইমরুল কায়েসও। পাকিস্তানী পেসার মোহাম্মদ ইরফানের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন এই টাইগার ব্যাটসম্যান।

কুমিল্লার অধিনায়ক স্মিথকেও বিদায় করেন আল-আমিন। আউট হওয়ার আগে ১৭ বলে ১ চারে ১৬ রান করেন তিনি। পাকিস্তানের অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার শোয়েব মালিককে (১৩) বেশীক্ষণ দাঁড়াতে দেননি সন্দ্বীপ লামিচানে। নিজের পরের ওভারে আনামুল হককে বোল্ড করে ফেরান এই নেপালি তারকা। তবে এই দীর্ঘ সময় ক্রিজের একপ্রান্ত আগলে রাখেন টাইগার ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। ৩৪ বলে ১ চার ও ১ ছক্কায় সাজানো ৩৫ রানের ইনিংসটি শেষ হয় নিকোলাস পুরানের হাতে রানআউটের শিকার হয়ে। দলের রান তখন ৬ উইকেটে ৯৭ রান।

কুমিল্লার জয়কে সহজ করে দেন আফ্রিদি। ২৫ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় অপরাজিত ৩৯ রানের ইনিংস খেলেন এই অলরাউন্ডার। বল হাতেও ১ উইকেট নিয়েছেন তিনি। তার শেষের ঝড়েই ১ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় কুমিল্লা। অলক কাপালির করা শেষ ওভারে দলের জয়সূচক বাউন্ডারিও আসে তার ব্যাট থেকেই। এমন অসাধারণ পারফরম্যান্স তাকে ম্যাচসেরার খেতাবও এনে দিয়েছে।

এর আগে আজ রোববার (৬ জানুয়ারি) দুপুর ১৩-৩০ মিনিটে মিরপুরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। দুপুরের ময়েশ্চার মিশ্রিত উইকেটে লিটন দাসকে নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামেন ওয়ার্নার। কিন্তু ইনিংসের মাত্র দ্বিতীয় ওভারেই শূন্য রানে ফেরেন লিটন। মেহেদি হাসানকে তুলে মারতে গিয়ে স্মিথের হাতে ধরা পড়েন বাংলাদেশি এই উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান।

কিন্তু ক্রিকেট সমর্থকদের চোখ তখনও আটকে কী করেন ওয়ার্নার তাই দেখার জন্য। কিন্তু এক কথায় হতাশই করলেন অস্ট্রেলিয়ান এই তারকা ক্রিকেটার। পঞ্চম ওভারে মেহেদির বলে রান নিতে গিয়েই বাধান বিপত্তি। নিজের প্রান্ত থেকে ওয়ার্নার বের হয়ে গেলেও অপর প্রান্তে থেকে যান তৌহিদ হৃদয়। আর এতেই রান আউট হয়ে ফেরেন এই তারকা ব্যাটসম্যান। ১৩ বলে ১৪ রান করে ফেরেন তিনি।

দলীয় রান ৪৬ হতেই ফেরেন ১৬ বলে ১৯ রান করা আফিফ হোসেনও। মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে ফেরেন তিনি। হৃদয়ও ফিরতে সময় নেননি। ২৪ বলে ৮ রান করেই বিদায় নেন ।

ইনিংস বড় করার আভাস দিলেও বেশি সময় উইকেটে থাকতে পারেননি সাব্বির রহমানও। মাত্র ৫ বল খেলে ৭ রান করে মেহেদির বলে ফেরেন এই হার্ডহিটার। শেষের দিকের ব্যাটসম্যানরা কিছুটা সময় চেষ্টা করেও দলকে ১২৭ রানের বেশি টেনে নিতে পারেননি।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেন নিকোলাস পোরান (২৬ বলে ৪১), এছাড়া ২০ বলে ১৯ রান করেন অলক কাপালি। বল হাতে কুমিল্লার মেহেদি হাসান ৪ ওভারে ২৪ রান খরচে তুলে নেন ২ উইকেট। ৩ ওভারে ২২ রান খরচে ২ উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ শহীদ, ৩ ওভারে ১৩ রানে ২ উইকেট সাইফউদ্দিন আর ৪ ওভারে ২৯ রানে ১ উইকেট ঝুলিতে পুরেছেন আফ্রিদি।

মানবকণ্ঠ/কেএস