আপনার মেয়েটার কি হবে?

তাহসান-মিথিলা১৩ বছরের সম্পর্ক। আর তার ইতি ঘোষণা করলেন তাহসান-মিথিলা। তবে এই দীর্ঘ পথ চলায় ভালোবাসার স্মারক হিসেবে আইরা তাহরিম খান নামের এক কন্যা সন্তান রয়েছে তাদের। এতে করে এই জুটির ভক্তরা মনে করছেন তাহসান-মিথিলার বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত তাদের সন্তানকেই সবচেয়ে বাজে অভিজ্ঞতা দিবে।

বিচ্ছেদের বিষয়ে তাহসানের দেয়া পোস্টের কমেন্টে শহিদ হাসান সুমন নামে এক ভক্ত লিখেন, আপনার মেয়েটার কি হবে?

তুরিন আফসানা অর্চি লিখেন, তা ভাল কথা…বাচ্চাটা হওয়ার আগেই ডিভোর্স নিতেন… তাইলে অন্তত বাচ্চাটার জীবনে এইরকম কালো অধ্যায় শুরু হইতো না…মানুষ আপনাকে আদর্শ স্বামী,,আদর্শ বাবা ইত্যাদি ইত্যাদি বলে ডিফেন্স করে…মিথিলা আপুকে আদর্শ মা,,আদর্শ স্ত্রী হিসেবে ডিফেন্স করে…অথচ আপনারা করেন শুধুই Show off…আপনি আমাদের আপ্পি সমাজের জান,পরাণ,কলিজার টুকরা…কিন্তু কথা হচ্ছে চেহারা সুন্দর হইলেই আর ভিতরে শিক্ষার জ্ঞান থাকলেই সব হয় না…সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার মনোভাব লাগে…যোগ্যতা লাগে…সম্পর্ক ভাঙা অনেক সহজ…টিকানো কঠিন…আমি জানি না আপনাদের মাঝে সমস্যা কি…?কিন্তু একটা কথা খুব জোরের সাথে বলতে চাই…আপনাদের দুইজনকে ছেড়ে যাওয়ার হাজারটা কারণের মাঝেও আপনাদের দুইজনের সম্পর্ক বাঁচিয়ে রাখার জন্য একটা বড় কারণ ছিল আপনাদের বাচ্চাটা…অন্তত ওর কথা চিন্তা করলেও এই সম্পর্ক ভাঙার কোন কারণই আপনাদের চোখে পড়তো না…

ফারজানা হাসানঅনেকে আবার তাহসান-মিথিলাকে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার কথা বলেছেন।

ফারজানা হাসান নামে একজন লিখেন, তাহসান ভাইয়া দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি এই কাজটা করবেন না প্লিজ। এটা এত সহজ না। আমি আপনাদের দুজনকে খুব পছন্দ করি, আর আপনাদের দুজনকে সারা জীবন এক সাথে দেখতে চাই। প্লিজ………।

ফারহানা ফারাহ বলেন, ভালবাসা কি জিনিস সেটা আপনাদের দেখলে অনুভব করা যায়। বাংলাদেশের অভিনয় জগতে আপনারা আমার দেখা সেরা কাপল। প্লিজ আপনারা আলাদা হবেন না। আমরা ভক্তরা সেটা মানতে পারব না।। শুধু আইরার কথা চিন্তা করে আলাদা হবেন না প্লিজ প্লিজ।

তাহসানকে উদ্দেশ করে ইশা খান লিখেন, ভাইয়া, পৃথিবীর প্রতিটি সমস্যারই সমাধান আছে। অনেক মেয়েই আছে যারা আপনার উপর ক্রাশড; আবার অনেক ছেলে আছে, যারা মিথিলা আপুর উপর ক্রাশড। কিন্তু তারা সবাইই চায় যেন আপনারা ‘এক’ থাকেন।

এদিকে তাহসান-মিথিলা দম্পতির ভালোবাসা, প্রেম আর সংসার জীবন নিয়ে মিডিয়াতে বেশ আলোচনা হয়েছে। ভক্তদের অনেকেই এই দম্পতিকে আইডল মানেন। তবে বিয়ে বিচ্ছেদের ঘটনায় কেউ কেউ বিরূপ মন্তব্য করেছেন।

সারিফ আহমেদ নামে এক ভক্ত লিখেন, ছাড়াছাড়ি যাই করেন না কেন, এটা আপনাদের ব্যাপার। কিন্তু এর পর থেকে আপনাদেরকে যেন আর রোমান্টিক নাটক টেলিফিল্ম এ না দেখি। আই থিংক আপনারা এতো হিট হওয়ার পিছনে আপনাদের রিয়েল লাভ স্টোরিটাই ছিলো। তাই রিয়েল লাভ স্টোরই যখন নাই নাটকে ফেক স্টোরি দেখার কোন প্রশ্নই উঠে না।

নুসরাত সাথি লিখেন, ব্যাপার না এটা তো আপনাদের মানে মিডিয়ার মানুষ এর কাছে বেশ বড় কিছু না। স্বাভাবিক। একটা ধরবেন একটা ছাড়বেন এইতো হয়ে আসছে, যুগের সাথেও তো তাল মিলাতে হবে নাকি?

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার তাহসানের ভেরিফায়েড ফেইসবুক পেইজ থেকে তাহসান ও মিথিলার নাম দিয়ে একটি পোস্ট করা হয়। পোস্টে তারা আনুষ্ঠানিকভাবে ডিভোর্সের বিষয়টি স্বীকার করে নেন।

দু’বছর প্রেম করে ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট বিয়ে করেন তাহসান-মিথিলা। এরপর ২০১৩ সালে এ দম্পতির ঘরে জন্ম নেয় একমাত্র কন্যা সন্তান আইরা তাহরিম খান।

মানবকণ্ঠ/জেডএইচ