আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি পরে নির্বাচন: দুদু

আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি পরে নির্বাচন: দুদুবিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি পরে নির্বাচন। বেগম খালেদা জিয়া রাজনৈতিকভাবে বন্দি। এই রাজনৈতিক মামলার মীমাংসা করতে হবে এবং তাকে জেল থেকে বের করতে হবে। তার মুক্তির মধ্য দিয়েই দেশে স্বাভাবিক পরিস্থিতি আসবে এবং স্বাভাবিক পরিস্থিতি আসলেই তারপরে নির্বাচনের প্রশ্ন উঠবে।’

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে সুজন স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত শহীদ শাহজাহানের ১৭তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে ৯০’র গণঅভ্যুত্থান এবং আজকের প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সভাটি আয়োজন করে ।

দুদু বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে এবং পাকিস্তানি জামানায় কোনো কিছু সহজে এসেছে আমার তা মনে হয় না, রাজনৈতিক ইতিহাসে সেটা নেই। আন্দোলন ছাড়া কোনো কিছু কি অর্জিত হয়েছে? সুষ্ঠু নির্বাচন পেতে গেলে আন্দোলন করেই পেতে হবে, সেই আন্দোলনের মাধ্যমে এ সরকারকে আলোচনার টেবিল আনতে হবে।

নেতাকর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে দুদু বলেন, ‘বেগম জিয়া ছাড়া কেউ নির্বাচনের কথা ভাবলে ভাবতে পারেন, এতে মনে হয় না বেশি একটা কাজ হবে আপনাদের। আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সরকারে ছিলেন না, তিনি দলের একটি পদে ছিলেন। তাকে একটার পর একটা মামলা দেয়া হয়েছে। এবার যদি আমরা আন্দোলনে ব্যর্থ হই তাহলে বাংলাদেশে গণতন্ত্রের কোনো সম্ভাবনা থাকবে না। এজন্য আসুন সবাই ঐক্যবদ্ধ হই। কেয়ারটেকার সরকার প্রতিষ্ঠা বা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা আর যা কিছুই করি না কেন তার জন্য দরকার আন্দোলন। তার আগে আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়াকে বের করে নিয়ে আসি। তিনি বের হলে ভালো কিছু হবে, তাছাড়া হবে না।’

কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স প্রমুখ।

মানবকণ্ঠ/ডিএইচ