আগামীকাল থেকে হজ ক্যাম্পে যাত্রী আসা শুরু হবে

উদ্বোধনী ফ্লাইটের ৮২১ জনের প্রস্তুতি সম্পন্ন

আগামীকাল থেকে হজ ক্যাম্পে যাত্রী আসা শুরু হবে

পবিত্র হজে যাওয়ার জন্য হজযাত্রীদের রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে আসা শুরু হবে আগামীকাল (মঙ্গলবার) থেকে। রোববার (১৪ জুলাই) হজযাত্রী নিয়ে জেদ্দার উদ্দেশে ফ্লাইট শুরু হবে। এ ছাড়া আগামী ১১ জুলাই (বুধবার) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশকোনা হজ ক্যাম্পে চলতি বছরের হজ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে ক্যাম্পে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হচ্ছে। গত কয়েকদিন যাবৎ র‌্যাব, ডিবি, সিআইডিসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ভেতরে-বাইরে রেকি করছেন।

আগামী ১৪ জুলাই উদ্বোধনী দিনে দুটি ফ্লাইটে সরকারিভাবে যে ৮২১ হজযাত্রী যাবেন তাদের ভিসা ও সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়াসহ হজযাত্রার সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়ে গেছে। ইতিমধ্যেই প্রথমদিনের ফ্লাইটের সব যাত্রীর সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে ও মোবাইল ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে যোগাযোগ করে ১০ জুলাই হজ ক্যাম্পে উপস্থিতি নিশ্চিত করতে কাজ চলছে।

নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, ১৪ জুলাই সকালে হজ ফ্লাইট আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হলেও ১৩ জুলাই দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে বেসরকারি একটি হজ ফ্লাইট জেদ্দার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়াধীন আশকোনা হজ ক্যাম্প, ঢাকার পরিচালক সাইফুল ইসলাম জানান, উদ্বোধনী ফ্লাইটের সব যাত্রীর ভিসা ও প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য পরীক্ষাসহ সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। পর্যায়ক্রমে হজযাত্রীরা পবিত্র হজ পালন করতে সৌদিআরব যাবেন। তিনি আরো বলেন, সোয়া লাখ হজযাত্রীকে স্বাগত জানাতে আমাদের প্রস্তুতি প্রায় শেষ। বুধবার (১১ জুলাই) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে হজের কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। তার দু’দিন পরে শুরু হবে হজ ফ্লাইট।

হজযাত্রীদের আগমন উপলক্ষে রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পের মসজিদ ও ক্যাম্প পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ করছেন পরিচ্ছন্নকর্মীরা। হজ ক্যাম্পে ধোয়া-মোছার কাজ দ্রুত শেষ হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, হজ ক্যাম্পের ভেতরে ও বাইরে সংস্কারের কাজ চলছে।

হজ ক্যাম্পে পরিচ্ছন্নতার কাজে নিয়োজিত রাহেলা বেগম বলেন, গত সোমবার থেকে হজ ক্যাম্পে আমরা কাজ শুরু করেছি। শেষ হতে আরো দুই একদিন লাগবে। মোট ২০ জনের একটি দল এ কাজ করছেন বলেও জানান রাহেলা।

ক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, ফ্লাইটের আগে হজযাত্রীদের আশকোনা হজ ক্যাম্পে দুই-তিন দিন অবস্থান করার নিয়ম রয়েছে। কারণ এখানে প্রতি ওয়াক্ত নামাজের পর হজের করণীয় বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এ ছাড়াও মক্কা, মদিনা, আরাফাত ও মিনায় গিয়ে কীভাবে হজের আনুষ্ঠানিকতা পালন করতে সে বিষয়গুলো অবহিত করা হয়। আশকোনা হজ ক্যাম্পের পরিচালক সাইফুল ইসলাম বলেন, হজযাত্রীদের সব ধরনের সেবা দেয়ার জন্য ক্যাম্পের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। হজযাত্রীদের জন্য আমাদের ৪০ জনের একটি স্বেচ্ছাসেবী দল সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবে।

তিনি বলেন, হজ ক্যাম্পে সব সময় তিন হাজার হজযাত্রী অবস্থান করবেন। ধারাবাহিকভাবে এখানে সব যাত্রী এসে দুই-তিন দিন করে অপেক্ষা করবেন। বিভিন্ন বিষয়ে তালিম দেয়ার পর তাদের ফ্লাইট হবে।

উল্লেখ্য, চলতি বছর সরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬ হাজার ৭৯৮ জন ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২০ হাজারসহ মোট ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজে যাবেন।

মানবকণ্ঠ/এসএস