আকস্মিক বৈঠকে দুই কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতারা

বৈঠকে

দুই দেশের মধ্যবর্তী অসামরিকীকৃত সীমান্তে আকস্মিক বৈঠক করেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জন উং ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল শনিবার বিকেল ৩টায় শুরু হয়ে টানা দুই ঘণ্টা চলে ওই বৈঠক।

সাম্প্রতিক সময়ে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ও দক্ষিণ কোরিয়ার নেতা মুন জায়ে ইনের মধ্যে এটি দ্বিতীয় বৈঠক। যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ বৈঠকের সম্ভাবনা পুনরুজ্জীবিত করতে দুই পক্ষের চেষ্টার মধ্যে দেশ দুটির নেতারা এ সাক্ষাতে মিলিত হলেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

দুই নেতার এই আকস্মিক বৈঠকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ছিলেন তার গোয়েন্দা প্রধান সু হুন। অন্যদিকে, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের সঙ্গে ছিলেন দেশটির সামরিক গোয়েন্দা প্রধান ও ক্ষমতাসীন ওয়ার্কার্স পাটি অব কোরিয়ার (ডব্লিউপিকে) ভাইস চেয়ারম্যান কিম ইয়ং চোল।

১২ জুন সিঙ্গাপুরে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমের বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার ট্রাম্প বৈঠকটি বাতিল করেন। কিন্তু পরে বৈঠকটি হওয়ার সুযোগ এখনো আছে বলে জানান।

kim-moon

বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট মুনের দফতর জানিয়েছে, শনিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৩টা থেকে ৫টার মধ্যে যুদ্ধবিরতি গ্রাম পানমুনজোমের উত্তরাংশে দুই নেতা বৈঠক করেছেন। বিবৃতিতে বলা হয়, উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ বৈঠক সফল করতে উভয় নেতা মতবিনিময় করেছেন।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, দুই ঘণ্টার বেশি সময় চলা দুই নেতার ওই বৈঠকে ২৭ এপ্রিল পানমুনজমে অনুষ্ঠিত প্রথম বৈঠকে ঐকমত্যে পৌঁছানো শান্তি বিষয়ক প্রতিশ্রুতিগুলো নিয়ে আলোচনা হয়।

মুন রোববার (আজ) সকালে এই বৈঠকের ফলাফল ঘোষণা করবেন বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে। প্রস্তাবিত ট্রাম্প-কিম বৈঠক অনুষ্ঠিত হলে আলোচনায় কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্তকরণের উপায় ও উত্তেজনা প্রশমণের বিষয়গুলো প্রাধান্য পেতে পারে। ডেইলি মেইল ও বিবিসি

মানবকণ্ঠ/আরএ