আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের বার্ষিক মুনাফা ৩০.৩ কোটি টাকা

ঘোষিত স্টক ডিভিডেন্ট ২০%, মুনাফা বেড়েছে ২৬.২%

আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডআইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, ১৯৮১ সালে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশের প্রথম আর্থিক প্রতিষ্ঠান, পাঁচ বছরের কৌশলগত পরিকল্পনার প্রথম বছর সফলভাবে সমাপ্ত হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর ট্রাস্ট মিলনায়তনে আয়োজিত প্রতিষ্ঠানের ৩৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) এ ঘোষণা দেওয়া হয়। কোম্পানিটি ঘোষণা করেছে যে, তার মুনাফা ২৬.২% বেড়ে ৩০.৩ কোটি টাকা হয়েছে।

এজিএম অনুষ্ঠানে আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের চেয়ারপার্সন ড. মুহাম্মদ মুসা বলেন, ‘আইপিডিস ফাইন্যান্স লিমিটেড কাঙ্ক্ষিত প্রবৃদ্ধি অর্জনের জন্য পাঁচ বছরের কৌশলগত পরিকল্পনার প্রথম বছর বেশ সফলতার সাথে সম্পন্ন করেছে। আমাদের এই সাফল্য দেশের সাধারণ মানুষের জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটানোর জন্য আগামী বছরগুলোতে একটি সুস্পষ্ট লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে শেয়ারহোল্ডারদের আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে।’

এই সভায় সম্মানিত শেয়ারহোল্ডাররা উপস্থিত ছিলেন, যেখানে কোম্পানির সফলতা উত্তরোত্তর বৃদ্ধির জন্য নতুন কর্মকৌশল তুলে ধরা হয়। একটি উচ্চ মানসম্পন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হতে আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড কর্মসংস্থান সৃষ্টি, প্রতিটি পরিবারের জন্য একটি বাড়ি, নারীর ক্ষমতায়ন এবং মেগা সিটি পেরিয়ে-এর মাধ্যমে সফলতার গল্প তৈরি করতে এখন সাধারণ মানুষকে সহায়তার প্রতি গুরুত্ব দিয়েছে। আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড ২০১৬ সালের জন্য ২০% স্টক ডিভিডেন্ট ঘোষণা করেছে, যা সকল শেয়ারহোল্ডার দ্বারা অনুমোদিত হয়েছে।

বার্ষিক সাধারণ সভায় উপস্থিত ছিলেন অধিকাংশ শেয়ারহোল্ডারদের প্রতিনিধিত্বকারী বোর্ড অব ডিরেক্টর, ব্র্যাক, বাংলাদেশ সরকার, আগা খান ফান্ড ফর ইকনোমিক ডেভেলপমেন্ট (একেএফইডি), আয়শা আবেদ ফাউন্ডেশন, আরএসএ ক্যাপিটাল। এ ছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের এমডি এবং সিইও মমিনুল ইসলাম, কোম্পানি সেক্রেটারি সামিউল হাসিম এবং ব্যবস্থাপনা কমিটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

উল্লেখ্য, দেশের প্রাইভেট খাতের প্রথম আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড (পূর্বে ‘ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রোমোশন এন্ড ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড’ নামে পরিচিত ছিলো) ১৯৮১ সালে বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করে। যাত্রার শুরুতে এর শেয়ার হোল্ডার প্রতিষ্ঠানগুলো ছিলো- ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স কর্পোরেশন (আইএফসি), ইউএসএ; জার্মান ইনভেস্টমেন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি (ডিইজি), জার্মানি; দি আগাখান ফান্ড ফর ইকোনোমিক ডেভেলপমেন্ট (একেএফইডি), সুইজারল্যান্ড; কমনওয়েলথ ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন (সিডিসি), ইউকে এবং বাংলাদেশ সরকার।

মানবকণ্ঠ/আরএ