অ্যান্ড্রু কিশোরের কণ্ঠে সৈয়দ হকের শেষ তিনটি গান

প্রয়াত বরেণ্য সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের জীবনের শেষ তিনটি গানের সুর সঙ্গীত করছেন কিংবদন্তি সুরকার ও সংগীত পরিচালক আলম খান। সৈয়দ হকের শেষ ইচ্ছানুযায়ীই আলম খান সুর করছেন এবং যথারীতি গাইবেন অ্যান্ড্রু কিশোর। এরই মধ্যে দুটি গান আলম খান হাতে পেয়েছেন এবং প্রাথমিক সুরও করেছেন তিনি। আর একটি গান এখনো পাননি তিনি। তবে তৃতীয় গানটি শিগগিরই পেয়ে যাবেন। তৃতীয় গানটি গত বছর একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত হয়েছিল। গানটি এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানান আলম খান। আলম খান বলেন, ‘সৈয়দ শামসুল হকের শেষ ইচ্ছে অনুযায়ীই মনের মতো করেই গানগুলোর সুর করার চেষ্টা করছি। যে কারণে একটু সময় নিয়ে যত্ন করে করছি। আশা করছি চলতি বছরেই গানগুলোর কাজ শেষ করতে পারব। তাছাড়া তিনটি গানের ব্যাপারেই অ্যান্ড্র–র যথেষ্ট আন্তরিকতা আছে।’ গান তিনটি প্রসঙ্গে অ্যান্ড্রু কিশোর বলেন,‘ গান তিনটির কাজ ঠিক কখন শেষ হয় তা বলা মুশকিল। যত তাড়াতাড়ি করা সম্ভব, সেই চেষ্টাই করছি। তবে এটা শতভাগ নিশ্চিত যে গানগুলো বেশ যত্ন নিয়েই করা হবে। যেহেতু হক ভাই আমাদের মাঝে আর নেই, তাই আমার এবং আলম ভাইয়ের দায়িত্বটাও একটু বেশি। যতটুকু নিখুঁতভাবে করা যায় সেই চেষ্টাটাই করছি আমরা। এর মধ্যে আলম ভাইয়ের সঙ্গে বেশ কয়েকবার গানগুলো নিয়ে বসেছিও আমি।’ এদিকে অ্যান্ড্রু কিশোর আরো এক ভয়াবহ তথ্য দিলেন নিজের ফেইসবুক আইডি নিয়ে। তিনি জানান ফেইসবুকে তার কোনো ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট নেই। কিন্তু তার পরও সংস্কৃতি অঙ্গনের অনেকেই তার নামে ভুয়া ফেইসবুক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে অনেকেই বন্ধু হিসেবে আছেন। অনেকেই সেই ভুয়া আইডি থেকে চাওয়া বিকাশ নম্বরে কাউকে সাহায্য করার নামে টাকাও পাঠিয়েছেন, যা পুরোটাই ভিত্তিহীন। তাই অ্যান্ড্রু কিশোরের অনুরোধ সেই অ্যাকাউন্ট থেকে নিজেদের সরিয়ে নিতে। তবে অ্যান্ড্রু কিশোর জানান, তার নামে ফেইসবুকে একটি পেজ আছে। উল্লেখ্য, সৈয়দ শামসুল হকের লেখা ‘ভুলি নাই তোমাদের মতো শত সহস্র’ গানটির প্রথম সুর করেন আলম খান। এটি মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটি তথ্যচিত্রের গান ছিল। মোহাম্মদ মহীউদ্দিন পরিচালিত ১৯৮২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বড় ভালো লোক ছিল’ চলচ্চিত্রে সৈয়দ হকের লেখা গান প্রথম চলচ্চিত্রের গানের সুর করেন আলম খান। ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুষ দম ফুরাইলে ঠুস’ গানটির সুর করে আলম খান এবং এতে কণ্ঠ দিয়ে অ্যান্ড্রু কিশোর প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

মানবকণ্ঠ/আরএস