শিরোনাম :
উত্তরাঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ : বাড়ছে শীতজনিত রোগ
Published : Thursday, 12 January, 2017 at 12:00 AM
নিজস্ব প্রতিবেদক
উত্তরাঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ : বাড়ছে শীতজনিত রোগরাজশাহী, কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, পঞ্চগড় ও শ্রীমঙ্গল অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে শৈত্যপ্রবাহ বইছে। এটি আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। তীব্র শীতে সবচেয়ে বেশি কষ্ট পাচ্ছে বৃদ্ধ ও শিশুরা। শীতের কারণে হাসপাতালগুলোতে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে।
আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, আন্দামান সাগর ও এর আশপাশের এলাকায় একটি লঘুচাপ অবস্থান করছে। উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ বিহার ও এর আশপাশের এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত আছে।
২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, লঘুচাপের প্রভাবে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকার কোথাও কোথাও এবং এর আশপাশের এলাকার মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্য এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাতের ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে। গতকাল দেশের সর্বনি¤œ তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায় ৯ দশমিক ৪ ডিগ্রি। এ সময় রাজধানীর তাপমাত্রা ছিল ১৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
মানবকণ্ঠের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, ঘন কুয়াশা ও কনকনে ঠাণ্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। রাতভর বৃষ্টির মতো পড়ছে কুয়াশা। পাশাপাশি সকালে ও বিকেলে উত্তরীয় হিমেল হাওয়া শীতের মাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মিলছে না সূর্যের দেখা। ঘন কুয়াশার কারণে দিনের বেলাতেও হেড লাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন। এ অবস্থায় গরম কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষজন। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মাঠে যেতে পারছেন না কৃষি শ্রমিকরা। বিশেষ করে জেলার নদ-নদী তীরবর্তী এলাকার চর ও দ্বীপ চরে বেশি ঠাণ্ডা অনুভূত হওয়ায় এখানকার মানুষজন খুড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। ঠাণ্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। তীব্র শীতে দুর্ভোগ বেড়েছে গবাদি পশু পাখিরও।
কুড়িগ্রাম শহরের রিকশাচালক মনোয়ার হোসেন জানান, সকাল ৮টা বাজে এখনো অনেক শীত। গড়ি চালাতে পারছি না। অনেক কষ্ট হলেও বাধ্য হয়ে রিকশা নিয়ে বের হয়েছি। কুড়িগ্রাম পৌরসভায় গড়ের পাড় এলাকার মর্জিনা বেওয়া জানান, আমরা গরিব মানুষ কাজ করে ভাত খাই। গরম কাপড় না থাকায় সকালে বের হতে পারি না। কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে শিশুর চিকিৎসা নিতে আসা হযরত আলী জানান, অতিরিক্ত ঠাণ্ডার কারণে ছেলের ডায়রিয়া হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা নিচ্ছি।
ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ৩১ জন শিশু ও একজন বৃদ্ধ কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে। কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. শাহিনুর রহমান সরদার জানান, শীতের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় সদর হাসপাতালে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সদর হাসপাতালে মোট ২০৪ জন রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে। এর মধ্যে শিশুর সংখ্যা ৬০ জন। ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে ৩১ শিশু ও ১ বৃদ্ধ।







প্রথম পাতা'র আরও খবর

অ্যাপস ও ফিড
সামাজিক নেটওয়ার্ক
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আনিস আলমগীর
প্রকাশক : জাকারিয়া চৌধুরী
রোড -১৩৮, প্লট - ১/এ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২
ফোনঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৩-৫, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৮
ই-মেইল : info@manobkantha.com, mkonlinedesk@gmail.com
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । মানবকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আনিস আলমগীর, প্রকাশক : জাকারিয়া চৌধুরী
রোড -১৩৮, প্লট - ১/এ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২ ফোনঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৩-৫, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৮
ই-মেইল : info@manobkantha.com, mkonlinedesk@gmail.com