শিরোনাম :
বিশ্বব্যাংকের পূর্বাভাস : বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি কমে হবে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ
Published : Thursday, 12 January, 2017 at 12:00 AM
অর্থনৈতিক প্রতিবেদক
এ বছরে সরকার বেশি করে অর্থাৎ ৭ দশমিক ২ শতাংশ মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রাক্কলন করেছে। কিন্তু বিশ্বব্যাংকের পূর্বাভাস তা কমিয়ে দিয়েছে। আন্তর্জাতিক ঋণদাতা এ সংস্থাটি বলছে, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ভারত ও পাকিস্তানের বাড়লেও চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশে জিডিপির প্রবৃদ্ধি কমে ৬ দশমিক ৮ শতাংশ হতে পারে। বিশ্ব অর্থনীতির সম্ভাবনা নিয়ে বুধবার ‘গ্লোবাল ইকোনমিক প্রসপেক্টস’-এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।
যদিও সরকার এবারের বাজেটে ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ৭ দশমিক ২ শতাংশ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ঠিক করেছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতও বলেছেন, আগামী দিনগুলোতে প্রবৃদ্ধি আর ৭ শতাংশের নিচে নামবে না। আর পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, গত অর্থবছরে চূড়ান্ত হিসেবে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭ দশমিক ১১ শতাংশ। যা বিশ্বব্যাংক পূর্বাভাস দিয়েছিল ৭ দশমিক ১ শতাংশের। এবার সরকার ৭ দশমিক ২ শতাংশ প্রাক্কলন করলেও বিশ্বব্যাংক সরকারের প্রত্যাশার সঙ্গে পুরোপুরি    তো দূরের কথা, অনেক কম পূর্বাভাস দিল। ‘গ্লোবাল ইকোনমিক প্রসপেক্টস’-এর জুন সংখ্যায় বিশ্বব্যাংক বলেছিল, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাংলাদেশ ৬ দশমিক ৩ শতাংশের বেশি জিডিপি প্রবৃদ্ধি পাবে না। আর ছয় মাস পর জানুয়ারির প্রতিবেদনে যে প্রক্ষেপণ তারা দিয়েছে, তা আগের হিসাব থেকে ৫ শতাংশ পয়েন্ট বেশি করে ৭ দশমিক ১ শতাংশের কথা বলে। দক্ষিণ এশিয়ায় ৭ দশমিক ৩ শতাংশ হবে প্রবৃদ্ধি। তবে ভারত ও পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি বাড়লেও আন্তর্জাতিক ঋণদাতা সংস্থাটি বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি কমানোর পূর্বাভাস দিল। তা ৬ দশমিক ৮ শতাংশ বলে ঘোষণা দিয়েছে সর্বশেষ।
সর্বশেষ জানুয়ারি মাসের ওই গ্লোবাল প্রতিবেদনে বিশ্বব?্যাংক বলেছে, বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহে শ্লথগতির কারণে ব্যক্তি খাতে ভোগ ব?্যয় ও বিনিয়োগ উভয় খাতেই মন্দা যাচ্ছে। শুধু তাই নয়, রেমিট্যান্স প্রবাহ কমতে থাকায় রফতানি খাতের দুর্বলতায় ২০১৭-১৮ সালের বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কিছুটা কমে ৬ দশমিক ৫ শতাংশে নামতে পারে বলে বিশ্বব্যাংকের অভিমত। ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, রাজস্ব খাতে ভারসাম্য আনতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া না হলে এবং আর্থিক ও কর্পোরেট খাতে স্থিতিশীলতার অবনতি ঘটলে বাংলাদেশে প্রবৃদ্ধি আরো কমে সাড়ে শতাংশে নেমে যাবে। যেখানে ভারতের হবে ৭ দশমিক ৬ থেকে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ এবং পাকিস্তানের ৫ দশমিক ২ থেকে ৫ দশমিক ৫ শতাংশ।







প্রথম পাতা'র আরও খবর

অ্যাপস ও ফিড
সামাজিক নেটওয়ার্ক
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আনিস আলমগীর
প্রকাশক : জাকারিয়া চৌধুরী
রোড -১৩৮, প্লট - ১/এ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২
ফোনঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৩-৫, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৮
ই-মেইল : info@manobkantha.com, mkonlinedesk@gmail.com
© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । মানবকণ্ঠে প্রকাশিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র ও অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি।
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : আনিস আলমগীর, প্রকাশক : জাকারিয়া চৌধুরী
রোড -১৩৮, প্লট - ১/এ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২ ফোনঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৩-৫, ফ্যাক্সঃ +৮৮-০২-৫৫০৪৪৯৪৮
ই-মেইল : info@manobkantha.com, mkonlinedesk@gmail.com