মুক্তির পর সোহেলকে হয়রানি না করার নির্দেশ

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল ইতোমধ্যেই উচ্চ আদালত থেকে ১৪৩টি মামলায় জামিনে রয়েছেন। তবে তিনি এখন কারাগারে আটক রয়েছেন। কারাগার থেকে তাকে মুক্তি দেয়ার পর কোনো সুনির্দিষ্ট মামলা ছাড়া গ্রেফতার বা হয়রানি না করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
সোমবার বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে সোহেলের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, সঙ্গে ছিলেন মো. মোস্তফা সরোয়ার সোহান ও এম মাসুদ রানা। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।
আইনজীবী মো. মোস্তফা সরোয়ার সোহান জানান, সোহেল ইতোমধ্যেই উচ্চ আদালত থেকে ১৪৩টি মামলায় জামিন পেয়েছেন। তিনি যেকোনো সময় মুক্তি পাবেন। কারাগার থেকে মুক্তির পর যেন তাকে পুনরায় গ্রেফতার বা হয়রানি না করা হয় সেজন্য হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়। গত ১৯ মার্চ হাইকোর্টে এ রিট আবেদন করা হয়। রিটের শুনানি শেষে আদালত সোমবার উপরোক্ত আদেশ দেন।
এর আগে গত বছরের ৯ অক্টোবর নাশকতার বিভিন্ন মামলায় ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন সোহেল। আদালত জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
রাজধানীর বিভিন্ন থানায় বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের টানা অবরোধ ও হরতালের মধ্যে নাশকতার বিভিন্ন ঘটনায় এসব মামলা করা হয়েছিল বলে জানান আইনজীবীরা।

মানবকণ্ঠ/এমআর/এফএইচ